কালার ইনসাইড

চারজন দর্শকেই খুশি নিপুণ-ইমনরা

প্রকাশ: ০৩:৪৯ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২


Thumbnail চারজন দর্শকেই খুশি নিপুণ-ইমনরা

নির্মাতা সাইদুল ইসলাম রানা পরিচালিত প্রথম সিনেমা ‘বীরত্ব’। এতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক মামনুন ইমন ও নবাগত নায়িকা সালওয়া। গত শুক্রবার দেশের ৩৫ হলে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি।  সিনেমাটির গল্পটা মফস্বল শহরের। সেখানকার সাধারণ মানুষের আবেগ-অনুভূতি যেমন জড়িত, তেমনি আছে অন্ধকার জগতের ভয়াবহতা। সবকিছু ছাপিয়ে গল্পটিতে মুখ্য হয়ে ওঠে চিকিৎসকদের ত্যাগ ও বীরত্বের আখ্যান।
 
তারকাবহুল এই সিনেমায় অভিনয় করেছেন সিনেমার ইমন নিপুণ, ইন্তেখাব দিনার, নাসিম, মনিরা মিঠু ও কচি খন্দকার, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, বড়দা মিঠু, মআরমান পারভেজ মুরাদ, শিল্পী সরকার অপু প্রমুখ।

সিনেমাটি দেখতে পরিচালক সাইদুল ইসলাম রানা ও অন্যান্য কলাকুশলীরাসহ নিপুনরা বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজবাড়ীর সাধনা সিনেমা হলে যান। তবে দুপুরের শো দেখার জন্য সেসময় পর্যন্ত কেউ টিকিট কাটেননি। পরে নায়ক-নায়িকা হলের সামনে এসে গাড়ি থেকে নামলে একনজর দেখতে ভিড় করেন উৎসুক জনতা।

এরপর নায়ক-নায়িকা হলের মধ্যে প্রবেশ করলে সিনেমাটি চালানো হয়। তখন মাত্র ১৫টি টিকিট বিক্রি হয়। অবশ্য সিনেমা দেখার চেয়ে নায়ক-নায়িকা দেখার আগ্রহের কারণেই টিটিকগুলো কিনেন দর্শকরা। এর আগে বীরত্ব ছবির সকালের শো’তে মাত্র চারটি টিকিট বিক্রি করেন হল কর্তৃপক্ষ। দুপুরের শোতে দর্শকদের সঙ্গে হলে কিছুক্ষণ সিনেমা দেখে বের হয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন পরিচালক সাইদুল ইসলাম রানা, নায়ক ইমন ও নায়িকা নিপুণসহ অন্য কলাকুশলীরা। সেসময় চিত্রনায়ক ইমন বলেন, ‘বীরত্ব’ ছবিটি সারাদেশে হাউসফুল যাচ্ছে। দর্শকদের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন তারা।

সেসময় সাংবাদিকরা নায়ক ইমনকে প্রশ্ন করেন, আপনি জানালেন বীরত্ব ছবি সারাদেশে হাউসফুল যাচ্ছে। কিন্তু এই হলে সকালের শোতে মাত্র চারটি টিকিট বিক্রি হয়েছে। আর দুপুরের শোতে আপনারা হলে ঢোকার আগ মুহুর্ত পর্যন্ত একটি টিকিটও বিক্রি হয়নি। এ বিষয়ে আপনি কি বলবেন?

উত্তরে ইমন বলেন, সকালের শোতে যে চারটি টিকিট বিক্রি হয়েছে এজন্য আলহামদুলিল্লাহ্। কারণ সকালের শোতে কেউ আসে না। অনেক বড় বড় ছবিতে সকালের শোতে দর্শক হয় না। আসলে শোটা ধরে হচ্ছে ইভিনিং শো। ইভিনিং শোটা সবজায়গায় ভালো যায়। আজকেতো আমরা বেশ হাউসফুলই দেখলাম। তো এইভাবে যদি সব জায়গাতেই ভালো যায় ওইটাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বড় পাওয়া।

সাধনা সিনেমা হলের অপারেটর হাসান আল মামুন বলেন, হলে দর্শক খুবই কম। বুধবার বীরত্ব সিনেমার সকালের শোতে মাত্র চারটি এবং দুপুরের শোতে নায়ক-নায়িকা আসার পর ১৫টি টিকিট বিক্রি হয়েছে।

উল্লেখ্য, রাজবাড়ী গোয়ালন্দ ও দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর নারীদের দিয়ে বিভিন্ন ক্রাইমের বিরুদ্ধে লড়ে যাওয়া একজন ডাক্তারের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে বীরত্ব। এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন নায়ক ইমন। ১৬ সেপ্টেম্বর দেশের ৩৫ টি হলে মুক্তি পায় সিনেমাটি।

নিপুণ   ইমন  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

স্কুলের গণ্ডি পার না হতেই নায়িকা তাঁরা

প্রকাশ: ১০:০০ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

অনেককেই তারকাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়েও আগ্রহ দেখা যায়। অনেকেই জানতে চান প্রিয় নায়িকার লেখাপড়ার ব্যাপারে। এখানে টুলে ধরা হল এমন কয়েকজন নায়িকাকে, যারা স্কুলছাত্রী থাকাকালীন চলচ্চিত্রে পা রাখেন। অভিজ্ঞতায় তারা পরবর্তীতে হয়ে উঠেছেন ঢাকাই সিনেমার পোস্টার গার্ল-

শাবানা

এ তালিকায় প্রথমেই উল্লেখ করা যায় চিত্রনায়িকা শাবানার নাম। ১৯৬৭ সালে ‘চকোরী’ সিনেমা দিয়ে বড় পর্দায় আসেন তিনি। শাবানা প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় স্কুলের গণ্ডি পার হতে পারেননি। তার আগেই সিনেমায় নাম লিখিয়ে তিনি জনপ্রিয়তা পান। অভিনয়কে ক্যারিয়ার হিসেবে নেয়ায় স্কুলের বারান্দা মাড়াননি। শাবানার প্রকৃত নাম রত্না। সার্টিফিকেটে নাম আফরোজা সুলতানা। চিত্র পরিচালক এহতেশাম তার শাবানা নামটি দেন।

১৫ বছর বয়সে নায়িকা হওয়া শাবানা ১১ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। প্রথম ছবিতে তার নায়ক ছিলেন চিত্রনায়ক নাদিম। শাবানা অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র ছিল ‘ঘরে ঘরে যুদ্ধ’।

ববিতা

১৯৬৯ সালে ‘শেষ পর্যন্ত’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে নায়িকা হিসেবে অভিষেক ঘটে সুন্দরী অভিনেত্রী ববিতার। ১৯৬৯ সালের ১৪ আগস্ট চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায় এবং ওইদিনই তার মা মারা যান। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এই অভিনেত্রীও স্কুলের ছাত্রী হিসেবেই চলচ্চিত্রে এসেছিলেন। পরবর্তীতে নিজেকে ঋদ্ধ করেছেন ইংরেজিসহ বেশকিছু ভাষায়। তবে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার জন্য তিনি যশোর দাউদ পাবলিক বিদ্যালয়ের পর আর কোথাও প্রবেশ করেননি।

চলচ্চিত্রে ববিতা দুর্দান্ত সফল এক নাম। তার অভিনয়, গ্ল্যামার মুগ্ধতা ছড়িয়েছে আশি-নব্বই দশকেও। বর্তমানে তিনি চলচ্চিত্র থেকে দূরে থাকলেও ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে বেশ আশাবাদী। স্বপ্ন দেখেন চমৎকার সিনেমার দিন ফিরে আসবে আবারও। তিনিও নিয়মিত অভিনয় করবেন।

২৫০ এর বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করা ববিতা ১৯৭৬ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রবর্তনের পর টানা তিনবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার জেতেন। এছাড়া ১৯৮৬ সালে আরেকবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী, ১৯৯৭ সালে শ্রেষ্ঠ প্রযোজক এবং ২০০৩ ও ২০১৩ সালে দুইবার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রীর পুরস্কার লাভ করেন।২০১৮ সালে তাকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের আজীবন সম্মাননা পুরস্কার প্রদান করা হয়।

শাবনূর

উইকিপিডিয়া অনুসারে মাত্র ১৩ বছর বয়সে চলচ্চিত্রে পা রাখেন শাবনূর। ১৯৭৯ সালে জন্মগ্রহণ করা এই অভিনেত্রীর পারিবারিক নাম কাজী শারমিন নাহিদ নূপুর। চিত্র নির্মাতা এহেতেশাম তার সিনেমাটিক শাবনূর নাম রাখেন। শাবনূর শব্দের অর্থ রাতের আলো। সে থেকেই তিনি এ দেশের কোটি পুরুষের আরাধ্য নারী ও নায়িকা।

শাবানা ও ববিতার মতো শাবনূরও স্কুলছাত্রী অবস্থায় সিনেমায় আসেন ও জনপ্রিয়তা পান। তবে তিনি আইএ পর্যন্ত শিক্ষাগ্রহণ করেছেন। শাবনূরের পিতার নাম শাহজাহান চৌধুরী। তিন ভাই ও বোনের মধ্যে সবচেয়ে বড় তিনি।

শাবনূরের প্রথম চলচ্চিত্র ‘চাঁদনী রাতে’। সে ছবিটি ব্যর্থ হলেও নায়ক সালমান শাহের বিপরীতে আকাশছোঁয়া জনপ্রিয়তা পান তিনি। বলা হয় নব্বই দশকের পর থেকে তার মতো জনপ্রিয়তা আর কোনো অভিনেত্রীর ভাগ্যে জুটেনি। শাবনূর মানেই ছিলেন সিনেমা দেখতে দর্শকের হুড়োহুড়ি। শাবনূর মানেই প্রযোজকের নির্ভার থাকা।

বর্তমানে চলচ্চিত্র থেকে দূরে আছেন তিনি। মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের ‘এতো প্রেম এতো মায়া’ ছবিতে তার অভিনয়ের কথা রয়েছে।

পূর্ণিমা

চলচ্চিত্র জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র পূর্ণিমা। জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘এ জীবন তোমার আমার’ ছবিতে রিয়াজের বিপরীতে অভিষিক্ত হন তিনি। ১৯৯৭ সালে যখন ছবিটি মুক্তি পায় তখন পূর্ণিমা নবম শ্রেণির ছাত্রী।

‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিলো না’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে ২০১০ সালে প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। মাঝে কিছুটা সময় চলচ্চিত্রে বিরতি দিলেও সম্প্রতি দুটি ছবিতে কাজ করছেন তিনি। দুটি ছবিরই নায়ক ফেরদৌস।

পূজা চেরি

ঢাকাই সিনেমার নতুন সেনশেসন পূজা চেরি। ‘নূরজাহান’ দিয়ে অভিষিক্ত হলেও দর্শক পূজার অভিনয়ের জাদু দেখেছেন ‘পোড়ামন ২’ ছবিতে। সিয়ামের বিপরীতে সাবলীল অভিনয় করে প্রশংসিত পূজার মধ্যে সবাই খুঁজে পেয়েছেন চঞ্চলা শাবনূরকে। বর্তমানে নামের আগে চিত্রনায়িকা তকমা লাগলেও গত বছরও শিশুশিল্পী পূজা হিসেবেই চেনা হতো তাকে। ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট গার্লস পাবলিক স্কুলের ছাত্রী পূজা। স্কুলের গণ্ডি না পেরোতেই হয়েছেন নায়িকা। ৩০ নভেম্বর মুক্তি পাচ্ছে তার তৃতীয় ছবি ‘দহন’। রায়হান রাফি পরিচালিত এই ছবিতে পূজার নায়ক সিয়াম আহমেদ।

এছাড়াও সোনিয়া, অন্তরা, রত্না এই তিন নায়িকাও স্কুলের ছাত্রী থাকা অবস্থায়ই নায়িকা হয়েছেন বলে শোনা যায়। সোনিয়া বর্তমানে লন্ডনে স্বামী সন্তান নিয়ে সুখে দিন কাটাচ্ছেন। নায়িকা অন্তরা কয়েক বছর আগেই পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন।


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

অস্ট্রেলিয়ায় এক ফ্রেমে শাবনূর-ফারুকী-তিশা

প্রকাশ: ০৬:৫৯ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ঢাকাই ছবির সর্বকালের অন্যতম সফল অভিনেত্রী শাবনূর। সিনেমা পাড়ায় একটা কথা প্রচলিত আছে, দর্শক শুধু তাকে দেখার জন্যই সিনেমা হলে যেতেন। নব্বই দশকে জনপ্রিয়তার আকাশ ছুঁয়েছিলেন তিনি। ক্যারিয়ারের তুঙ্গে থাকা অবস্থায় বিয়ে করে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে পাড়ি জমান।

দীর্ঘদিন ধরেই সেখানে ছেলে আইজান, মা, ভাই-বোনসহ বসবাস করছেন শাবনূর। মাঝেমধ্যে দেশে এলেও খুব বেশিদিন থাকেন না। অনেক দিন নতুন সিনেমায় অভিনয় না করলেও শাবনূরের জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েনি। ভক্তদের কাছে তার আবেদন যেন আগের মতোই। 



দেশ থেকে মিডিয়ার কেউ অস্ট্রেলিয়া গেলে তাদের সময় দেন নন্দিত এই নায়িকা। জনপ্রিয় তারকা দম্পতি মোস্তফা সরয়ার ফারুকী ও নুসরাত ইমরোজ তিশা বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া অবস্থান করছেন। তাদের সঙ্গে আড্ডায় মজেছেন শাবনূর। তাদের কয়েকটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভেসে বেড়াচ্ছে। দেখা যায়- একটি রেস্তোরাঁয় বসে আড্ডা দিচ্ছেন শাবনূর, মোস্তফা সরয়ার ফারুকী ও ইলহামকে কোলে নিয়ে অন্যদের সঙ্গে তিশা। 

মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পরিচালনায় ‘ব্যাচেলর’ সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন শাবনূর। দীর্ঘদিন পর তাদের একসঙ্গে দেখা গেল। তবে এই পরিচালক ও অভিনেত্রীর মধ্যে কাজ নিয়ে কোনো কথা হয়নি বলে জানা যায়। এক দশকের বেশি সময় অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস করছেন শাবনূর। এ সময়ে ঢাকা ও সিডনিতে আসা–যাওয়ার মধ্যে রয়েছেন এই তারকা। শাবনূরের মা, ভাই–বোন, আত্মীয়স্বজনসহ পরিচিত ৫০ জনের বেশি মানুষ অস্ট্রেলিয়ায় থাকেন বলে জানা যায়। বর্তমানে একমাত্র সন্তান আইজান নেহানের পড়াশোনা নিয়েই শাবনূর বেশি চিন্তিত।


এর আগে চলতি বছরের মে মাসে ফোক সম্রাজ্ঞী মমতাজ গিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ায়। সেখানে দেখা হয় শাবনূরের।পুরো একটা দিন মমতাজের সঙ্গে ঘুরেছিলেন তিনি।এমনকি নিজে গাড়ি চালিয়ে গায়িকাকে বিমানবন্দর অব্দি পৌঁছে দিয়েছিলেন। সেই সুখস্মৃতি মমতাজ নিজেই শেয়ার করেছিলেন ভক্তদের সঙ্গে।


শাবনূর   তিশা  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

প্রতারণার শিকার অনন্ত জলিল!

প্রকাশ: ০৫:১০ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

নায়ক ও প্রযোজক অনন্ত জলিল। অসম্ভবকে সম্ভব করাই তার কাজ। বিজ্ঞাপনের সংলাপের মতো বাস্তবেও এর প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। আধুনিক প্রযুক্তিতে বিগ বাজেটের সিনেমা নির্মাণ করে এরই মধ্যে আলোচনার জন্ম দিয়েছেন এই নায়ক। সর্বশেষ অনন্ত অভিনীত ‘দিন দ্যা ডে’ সিনেমাটি মুক্তি পায়। এবার মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে বিগ বাজেটের সিনেমা ‘নেত্রী-দ্য লিডার’। এই সিনেমায় অভিনয় করেছেন চার দেশের শিল্পীরা। 

সিনেমাটির অফিসিয়াল টিজার প্রকাশের আগেই নেট দুনিয়ায় ভাসছে টিজার। এ নিয়ে মুখ খুলেন অনন্ত-বর্ষা। ভক্তদের প্রতারণা থেকে সাবধান থাকার জন্য এই তারকা দম্পতি জানান- বন্ধুরা, আপনাদের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে নেত্রী দ্যা লিডারের যে টিজারটি আপনারা দেখেছেন তা অফিসিয়াল টিজার নয়। ফ্যানরা অতি উৎসাহে তা বানিয়েছে। শুটিং চলাকালীন দর্শকদের মোবাইলে ধারণকৃত ও অন্যান্য  মুভির ফুটেজ ব্যবহার করে টিজারটি বানানো। নেত্রী দ্যা লিডারের টিজার প্রকাশ করার আগে অবশ্যই আমরা আমাদের  ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে  জানাবো।

এদিকে, অনন্তর ‘দিন দ্য ডে’ সিনেমা নিয়ে জটিলতায় অনন্ত জলিলকে তলব করেছেন তেহরানের একটি আদালত। এমনটাই বলছেন ‘দিন-দ্য ডে’ চলচ্চিত্রের ইরানি পরিচালক মুর্তজা আতশ জমজম। 

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে অনন্ত জলিল বলেন, সে যদি মামলা করে থাকে তাহলে করতে পারে। আমি ভিনদেশি, আমাকে তো আর নিয়ে যেতে পারবে না। আর সে মামলা করেছে তো কী হয়েছে, আমিও মামলা করেছি। আমি ভদ্র বলেই মামলা করা নিয়ে উচ্চবাচ্য করিনি। জমজম তেহরানে মামলা করেছে, আমি ঢাকায় মামলা করব। আমি সত্যের পথে আছি।
 

অনন্ত জলিল   দিন: দ্য ডে  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী নারীর তালিকায় প্রিয়াঙ্কা

প্রকাশ: ০৪:৫৯ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বিশ্বের ১০০ জন প্রভাবশালী নারীর তালিকা প্রকাশ করেছে গণমাধ্যম সংস্থা বিবিসি। ২০২২ সালে বৈশ্বিকভাবে ভূমিকা রাখা ও নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রের মাধ্যমে আলোচনায় থাকায় নারীরা জায়গা পেয়েছেন তালিকায়। সমাজকর্মী, সাংবাদিক, চলচ্চিত্র তারকা, ক্রীড়াবিদ থেকে শুরু করে সব শ্রেনী পেশার নারী জায়গা করে নিয়েছে এই তালিকায়। এ বছর তালিকায় জায়গা করেছেন নিয়েছেন ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস।

বিগত কয়েক বছর ধরেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পরিচিত মুখ প্রিয়াঙ্কা। বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী নারী হিসেবে তাকে বিবেচনা করা হয়। এবার বিবিসির প্রভাবশালীর তালিকায় নাম এল অভিনেত্রীর।