কালার ইনসাইড

জনপ্রিয় অভিনেতা বিক্রম গোখলে আর নেই

প্রকাশ: ০৮:৫৩ এএম, ২৪ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

জনপ্রিয় অভিনেতা বিক্রম গোখলে আর নেই। বুধবার রাতে পুণের দীননাথ মঙ্গেশকর হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

গত পনেরো দিন ধরেই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন এই অভিনেতা। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই তার শারীরিক অবস্থার ক্রমশ অবনতি হতে থাকে। বুধবার সকালে হাসপাতালের ডাক্তারদের তরফ থেকে জানান হয়েছিল তার অবস্থা বেশ সংকটজনক। রাতেই না ফেরার দেশে চলে গেলেন অভিনেতা। 

স্থানীয় সংবাদ সংস্থা সূত্রে তথ্য অনুযায়ী, তার মরদেহ আপাতত পুণের বালগন্ধর্ব সভাগৃহে রাখা হবে। সেখান থেকেই শেষকৃত্যের জন্য নিয়ে যাওয়া হবে তার দেহ।

শুধু বিক্রমই নন, তার পরিবারে অনেক সদস্যই অভিনয় জগতের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তার বাবা চন্দ্রকান্ত গোখলে ছিলেন মরাঠি ছবি এবং থিয়েটারের অভিনেতা। তার ঠাকুমাও ছিলেন অভিনেত্রী। বিক্রমও মরাঠি সিনেমা জগতে জনপ্রিয় ছিলেন। বিক্রম তার স্ত্রীর সঙ্গে পুণেতে থাকতেন। সেখানে একটি অভিনয়ের স্কুলও চালাতেন তিনি।

১৯৭৬ সালে মাত্র ২৬ বছর বয়সে বলিউডে পা রাখেন বিক্রম। অমিতাভ বচ্চন অভিনীত ‘পরওয়ানা’ ছিল বিক্রমের প্রথম ছবি। বিক্রমকে দর্শক সম্প্রতি ‘নিকম্মা’ ছবিতে দেখেছেন। এই ছবিতে মুখ্য চরিত্রে ছিলেন শিল্পা শেঠী এবং অভিমন্যু দাশানি।

‘হম দিল দে চুকে সনম’ ছবিতে ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনের বাবার চরিত্রে অভিনয় করে প্রচারের আলোয় চলে আসেন বিক্রম। ‘দিল সে’, ‘ভুলভুলাইয়া’, ‘হিচকি’, ‘মিশন মঙ্গল’-সহ আরও ছবিতে তার অভিনয় আজও দর্শকের মনে রয়েছে। মরাঠি ছবি ‘অনুমতি’-তে অভিনয়ের জন্য পেয়েছেন ভারতে সেরা অভিনেতার জাতীয় পুরস্কার।



মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

নায়িকা শিমু হত্যাকাণ্ডে বেড়িয়ে আসলো নতুন তথ্য

প্রকাশ: ০৬:০৫ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

এ বছরের ১৭ জানুয়ারি কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকা থেকে চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুর (৩৫) বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এরপর শিমুকে হত্যা করার অভিযোগে তার স্বামী শাখাওয়াত আলীম নোবেল ও তার বন্ধু ফরহাদকে গ্রেপ্তার করে কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ। তাদের আসামি করে হত্যা মামলাটি দায়ের করেন নিহতের বড় ভাই শহীদুল ইসলাম খোকন।

এরপর (২০ জানুয়ারি) মামলার প্রধান দুই আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। বর্তমানে তারা কারাগারে রয়েছেন। এবার এই চিত্রনায়িকার হত্যাকাণ্ডের মামলায় নতুন তথ্য হচ্ছে তার স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল ও তার বন্ধু এস এম ফরহাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) ঢাকার ৪র্থ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম আসামিদের উপস্থিতিতে এ অভিযোগ গঠন করেন। এর মধ্য দিয়ে এ মামলার আনুষ্ঠানিক বিচার কাজ শুরু হলো। সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য আগামী (২৩ জানুয়ারি) নতুন দিন ধার্য করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট আদালতের বেঞ্চ সহকারী রনি মজুমদার বিষয়টি জানিয়েছেন।

এর আগে ২০ জানুয়ারি ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সিজেএম) আদালতে শিমুর স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল ও নোবেলের বাল্যবন্ধু এস এম ফরহাদকে রিমান্ড চলাকালীন হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। এ সময় আসামিরা স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তি দিতে সম্মত হওয়ায়, তা রেকর্ড করার আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলামের আদালতে আসামি নোবেল এবং ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিশকাত শুকরানার আদালতে আসামি ফরহাদ জবানবন্দি দেন। এরপর তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

তারও আগে (১৮ জানুয়ারি) আসামিদের আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় দায়ের করা হত্যা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য আসামিদের ১০ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন ওই থানার উপপরিদর্শক (এসআই) চুন্নু মিয়া। শুনানি শেষে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাবেয়া বেগম তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ওই দিন কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় নোবেল ও তার বাল্যবন্ধুর বিরুদ্ধে মামলা করেন শিমুর ভাই হারুনুর রশীদ। এ ছাড়া মামলায় বেশ কয়েকজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়।

নায়িকা   শিমু  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

প্রথমবার হিন্দি সিনেমায় জয়া, সঙ্গে থাকছেন পঙ্কজ ত্রিপাঠী

প্রকাশ: ০৫:৪২ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান অভিনয় করত যাচ্ছেন নতুন সিনেমায়। ‘করক সিং’ শিরোনামের এই ছবিটি পরিচালনা করবেন অনিরুদ্ধ রায় চৌধুরী, যিনি কিছুদিন আগেই গোয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে ফিরেছেন। এই ছবির মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মত হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করতে যাচ্ছেন এই তারকা অভিনেত্রী।

জানা গেছে, ছবির নাম ভূমিকায় রয়েছেন বলিউড অভিনেতা পঙ্কজ ত্রিপাঠী। আর মুখ্য ভূমিকায় দেখা যাবে জয়া আহসানকে। শুধু তাই নয়, এখানে আরও অভিনয় করবেন ‘দিল বেচারা’ খ্যাত অভিনেত্রী সানজানা সাংভি। তাদের বাইরেও পশ্চিমবঙ্গের আরও বেশ কয়েকজন অভিনয়শিল্পীকে দেখা যাবে এই সিনেমায়। শোনা গেছে, এই ছবিতে প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের অভিনয় করার কথা ছিল।

আরও জানা গেছে, ছবিটি মূলত আর্থিক কেলেঙ্কারির ঘটনা নিয়ে নির্মিত হবে। তবে ছবির গল্প বাস্তব জীবন থেকে অনুপ্রাণিত কি না, তা নিশ্চিত ভাবে এখনই বলা যাচ্ছে না। ছবির শুটিং হবে কলকাতা ও মুম্বাইতে।

সবকিছু ঠিক থাকলে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই মুম্বাইতে ছবির শুটিং শুরু হবে। তারপর কলকাতায় টানা ২০ থেকে ২৫ দিন শুটিং হবে। ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহেই কলকাতায় আসবেন পঙ্কজ ত্রিপাঠী, সানজানা সাংভিরা। বাংলা ভাষায় না হলেও বাঙালি পরিচালকের সঙ্গে এটা পঙ্কজের তৃতীয় কাজ।

এর আগে একটি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবিতে দেখা গিয়েছিল অভিনেতাকে। তার পর সৃজিত মুখার্জির পরিচালিত ‘শেরদিল: দ্য পিলভিট সাগা’ ছবিতে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন পঙ্কজ।

পঙ্কজ ত্রিপাঠী   জয়া আহসান  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

নুহাশের সিনেমার প্রযোজক দুই অস্কারজয়ী

প্রকাশ: ০৫:৩৬ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বেশ কিছু আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে অংশ নিয়েছে নুহাশ হুমায়ূনের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘মশারি’। এ চলচ্চিত্রের ঝুলিতে জমা পড়েছে সম্মাননা স্মারক। এবার সিনেমাটি প্রযোজনা করছেন অস্কারজয়ী দুই নির্মাতা ও অভিনেতা।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক চলচ্চিত্র বিষয়ক ম্যাগাজিন ভ্যারাইটি ডটকম জানিয়েছে, গেট আউট’খ্যাত নির্মাতা জর্ডান পিল ও ‘সাউন্ড অব মেটাল’খ্যাত অভিনেতা রিজ আহমেদ ‘মশারি’ সিনেমার নির্বাহী প্রযোজক হচ্ছেন। তাদের প্রযোজনা সংস্থা মনকিপ ও লেফট হ্যান্ডেড ফিল্মসের মাধ্যমে নুহাশের এ সিনেমার সঙ্গে যুক্ত হচ্ছেন তারা।

পিলের প্রযোজনা সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘মশারি’ হলো ব্যতিক্রম একটি চলচ্চিত্র, যেটি প্রথম ফ্রেম থেকেই দৃশ্যায়ন ও আবেগের দিক থেকে নাড়া দিয়ে যায়। সিনেমাটি আমাদের পোস্ট অ্যাপোক্যালিপ্টিক পৃথিবীতে নিয়ে যায়। টিকে থাকা, ভালোবাসা ও পরিবার নিয়ে এ সিনেমা। তবে একই সঙ্গে মনস্টার সিনেমা কেমন হয়, এটি তা–ও দেখেছে। মনকিপ সিনেমাটির সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে কৃতজ্ঞ।

২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘গেট আউট’ সিনেমার জন্য সেরা মৌলিক চিত্রনাট্যকার হিসেবে অস্কার জেতেন জর্ডান। ৪৩ বছর বয়সী এই মার্কিন নির্মাতা এ সিনেমার পরিচালকও। অন্যদিকে রিজ আহমেদ পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ অভিনেতা। চলতি বছর সেরা লাইভ অ্যাকশন স্বল্পদৈর্ঘ্য ক্যাটাগরিতে অস্কার জিতেছেন তিনি।

এ সিনেমার গল্পে দেখা যায় বিশ্ব রক্তপিপাসু মশায় ভরে গেছে। শেষ মানুষ হিসেবে দুজন নারী বাংলাদেশে বেঁচে থাকে। তারা অজানা আতঙ্কে মশারির নিচে রাত পার করতে থাকে। এই নতুন পৃথিবীতে বেঁচে থাকার জন্য দুই বোন অপু (সুনেরাহ) ও আয়রা (নাইরা) লড়াই করে। এক রাতে আয়রা মশারি ঠিক করতে বাইরে বের হয় এবং অপুকেও উঠতে হয়। ঠিক তখন ভূতের মুখোমুখি হয় তারা।

চলতি বছরের মার্চে সাউথ বাই সাউথওয়েস্ট চলচ্চিত্র উৎসবে মুক্তি পায় ‘মশারি’। এতে অভিনয় করেছেন ‘ন ডরাই’খ্যাত অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল এবং হুমায়ূন আহমেদের নাতনি নাইরা।

অস্কারজয়ী   নুহাশ হুমায়ূন  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

অন্তরঙ্গ দৃশ্যের ক্লিপ ফাঁস হওয়া নিয়ে যা বলেলন স্বস্তিকা

প্রকাশ: ০৪:৪৭ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ভারতীয় বাংলা সিনেমার আলোচিত অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জি। তার আরেক পরিচয় তিনি অভিনেতা সন্তু মুখার্জির কন্যা। বাবার কারণে লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন শুনেই বেড়ে উঠেছেন তিনি। মাত্র ২১ বছর বয়সে অভিনয়ে তার অভিষেক ঘটে। তারপর অসংখ্য সিনেমা উপহার দিয়েছেন এই নায়িকা।

২০১৪ সালে মুক্তি পায় স্বস্তিকা মুখার্জি অভিনীত ‘টেক ওয়ান’ সিনেমা। সিনেমাটিতে একটি অন্তরঙ্গ দৃশ্য ছিল। এ দৃশ্যের শুটিংয়ের ক্লিপ নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছিল। মানুষ ধরে নিয়েছিল, এটি স্বস্তিকার বাস্তব জীবনের ভিডিও ক্লিপ। এ নিয়ে দারুণ সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন স্বস্তিকা। পরিবার থেকে পাড়াপড়শিরাও তাকে কটূ কথা শুনিয়েছে।



পুরোনো সেই অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও ক্লিপ নিয়ে মুখ খুলেছেন স্বস্তিকা। এ অভিনেত্রী ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে বলেন, আমার মনে আছে ‘টেক ওয়ান’ নামে একটা সিনেমায় অভিনয় করছিলাম। একজন নায়িকার জীবন নিয়ে ছিল সেই সিনেমার গল্প। যার একটি অন্তরঙ্গ দৃশ্যের ক্লিপ ফাঁস হয়ে যায় এবং সেটি এমএমএস স্ক্যান্ডাল হিসেবে ছড়িয়ে পড়ে। একজন নায়িকার জীবন তার ক্যারিয়ার সবকিছু নিয়ে তৈরি হচ্ছিল এই সিনেমা। তাই চরিত্রের প্রয়োজনে আমাকে মদ্যপ হতে হয়েছিল। কিন্তু পর্দার এই চরিত্রকে সকলেই সত্য হিসেবে ধরে নিয়েছিলেন।



আত্মীয়-স্বজন ও পাড়াপড়শিদের নিন্দার কারণে দারুণ চাপে পড়েছিল স্বস্তিকার বাবা-মা। তা জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, বেশিরভাগ মানুষ আমার বাবা-মাকে ফোন করে বলতো যে, স্বস্তিকা এসব কি করছে! এ ধরনের ঘটনা কেউ ঘটায়? কেউ কেউ বলেছিল, পরিবারে যত্ন হচ্ছে না বলেই স্বস্তিকা এসব কাজ করতে পারছে। এক পর্যায়ে মা বিরক্ত হয়ে যান। রেগে গিয়ে বলেছিলেন, ‘ইউ’ সার্টিফিকেট যুক্ত সিনেমা করতে পারবে না। বাচ্চাদের জন্য সিনেমা করবে। মাতাল চরিত্রে অভিনয় করবে কেন?
 
১৯৯৮ সালে বিখ্যাত রবীন্দ্র সংগীতশিল্পী সাগর সেনের ছেলে প্রমিত সেনকে বিয়ে করেন স্বস্তিকা। ২০০০ সালে চলচ্চিত্রে নাম লেখান তিনি। আর এরই মাঝে এক কন্যার মা হন স্বস্তিকা। মা হওয়ার পর চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়া কঠিন! এজন্য মা হওয়ার খবরও অনেকে গোপন রাখতে বলেছিলেন স্বস্তিকাকে। এ বিষয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, আমি যখন কাজ শুরু করলাম, তখন সবাই বলেছিলেন আমার মা হওয়ার কথা যেন কেউ জানতে না পারে। তাহলেই বিপদ। কারণ কেউ আর নায়িকা হিসেবে আমাকে পছন্দ করবে না, আমার চাহিদাও থাকবে না।

২০০৪ সালে প্রমিত সেনের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটে স্বস্তিকার। তারপর কন্যাকে সিঙ্গেল মাদার হিসেবে বড় করে তুলছেন তিনি। বিয়েবিচ্ছেদের পর অনেকের সঙ্গে স্বস্তিকার প্রেমের গুঞ্জন চাউর হয়েছে, তবে আর দ্বিতীয় বিয়ে করেননি এই নায়িকা।

অন্তরঙ্গ দৃশ্য   স্বস্তিকা  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

আদালতে সাক্ষ্য দিলেন পরীমণি

প্রকাশ: ১১:১২ এএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

শ্লীলতাহানির অভিযোগে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। এসময় তার স্বামী শরীফুল রাজকে সঙ্গে নিয়ে তিনি আদালতে উপস্থিত হন। 

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৯ এর বিচারক হেমায়েত উদ্দিনের আদালতে তিনি সাক্ষ্য দেন। সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ না হওয়ায় আদালত পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ১১ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন। পরীমণির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভি বিষয়টি জানিয়েছেন।

এদিন মামলার আসামি তুহিন সিদ্দিকী অমি ও শহীদুল আলম আদালতে হাজিরা দেন। অপরদিকে নাসির উদ্দিন অসুস্থ থাকায় আদালতে হাজির হননি বলে জানান তার আইনজীবী শাহিনুর রহমান। 

এর আগে গত ১৯ এপ্রিল এ মামলার দায় থেকে নাসির ও অমির অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন তাদের আইনজীবী। অন্যদিকে অব্যাহতির আবেদনের বিরোধিতা করেন বাদীপক্ষ। এছাড়া অভিযোগ গঠনের পক্ষে শুনানি করেন রাষ্ট্রপক্ষ। এরপর গত ১৮ মে আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত।

গত বছরের ১৪ জুন নাসির উদ্দিন ও তার বন্ধু অমির নাম উল্লেখ করে এবং চারজনকে অজ্ঞাত আসামি করে ঢাকার সাভার থানায় মামলা দায়ের করেন পরীমণি।

তদন্ত শেষে ২০২১ সালের ৬ সেপ্টেম্বর আদালতে নাসিরসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কামাল হোসেন। অন্য দুই আসামি হলেন—তুহিন সিদ্দিকী অমি ও শহীদুল আলম। এরপর গত বছরের ১৩ ডিসেম্বর এ মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৯ এর বিচারক হেমায়েত উদ্দিন।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৮ জুন রাতে ঢাকার অদূরের বিরুলিয়ার ঢাকা বোট ক্লাবে যান পরিমণি। সেদিন রাতে সেখানে তাকে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে বলে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমির বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন তিনি। পরে গত বছরের ১৩ জুন নাসির ও অমি ছাড়াও অজ্ঞাতনামা আরও চারজনের বিরুদ্ধে সাভার থানায় মামলা দায়ের করেন এই তারকা।



মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন