ইনসাইড বাংলাদেশ

চাপ দিয়ে কি সরকারকে নতজানু করা যাবে?

প্রকাশ: ০৮:০০ পিএম, ২১ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail চাপ দিয়ে কি সরকারকে নতজানু করা যাবে?

স্পষ্টত আন্তর্জাতিক চাপ তৈরি করা হচ্ছে বাংলাদেশের ওপর। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জো বাইডেন প্রশাসন একের পর এক যেমন বাংলাদেশের ওপর চাপ দিচ্ছে, এখন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোও বাংলাদেশের ওপর এক ধরনের মনস্তাত্ত্বিক চাপ সৃষ্টির চেষ্টা করছে। আর এই চাপ সৃষ্টির প্রধান হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, গুম ইত্যাদি বিষয়গুলোকে। কিন্তু প্রশ্ন হলো যে, বাংলাদেশে যতটুকু মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটে বা বাংলাদেশে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ে যত প্রশ্ন করা হয়, তারচেয়ে খারাপ অবস্থায় রয়েছে বিশ্বে এমন আরো অনেকগুলো রাষ্ট্র নিয়েও কোনো কথা বলা হচ্ছেনা। আমরা পাকিস্তানের কথাই ধরতে পারি। পাকিস্তানে যে মানবাধিকার পরিস্থিতি ভয়াবহ সেটা নিয়ে কারো কোনো প্রশ্ন নেই। কিন্তু পাকিস্তানের কাউকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জো বাইডেন প্রশাসন নিষিদ্ধ করেছে এমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়না। পাকিস্তানের এলিট ফোর্সকে নিষিদ্ধ করার জন্য কোনো মানবাধিকার প্রতিষ্ঠানগুলো কাজ করছে এমন কোনো তথ্য নেই। ভারতের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে সেখানকার বুদ্ধিজীবী এবং সুধীজন একের পর এক প্রশ্ন উত্থাপন করছেন। এমনকি অর্মত্য সেন পর্যন্ত ভারতের মানবাধিকার পরিস্থিতিকে ভয়াবহ আখ্যা দিয়েছেন এবং এটি হিন্দুত্ববাদী রাষ্ট্র হিসেবে আবির্ভূত হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন। কোথায়? ভারতের বিরুদ্ধে তো কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞার খবর পাওয়া যায়না? তাহলে কেন বাংলাদেশ?

বাংলাদেশে গত এক যুগে বিস্ময়কর উন্নয়নের অগ্রযাত্রা সংঘটিত হয়েছে। বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে চলছে। আর এই কারণেই প্রশ্ন উঠেছে বাংলাদেশের এই অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা ঠেকানোর জন্যই কি এক ধরনের চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে? বিভিন্ন মহল মনে করে যে, বাংলাদেশের যে উন্নয়ন তা অনেকের ঈর্ষার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বাংলাদেশের এই অগ্রযাত্রা এবং বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এই ঘুরে দাঁড়ানো অনেকের কাছেই পছন্দ না। আর সে কারণেই বাংলাদেশের ওপর বিভিন্নভাবে চাপ দেয়া হচ্ছে। বিশেষ করে এ সমস্ত চাপের পিছনে স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধী অপশক্তির একটা সক্রিয়, প্রত্যক্ষ ভূমিকা রয়েছে বলেই অনেকে মনে করেন। কিন্তু প্রশ্ন হলো, চাপ দিয়ে কি বাংলাদেশকে নতজানু করা যাবে?

বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর থেকেই আন্তর্জাতিক নানারকম ষড়যন্ত্রের ক্রিয়াক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশের ওপর ষড়যন্ত্র হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন স্বাধীন বাংলাদেশকে পুনর্গঠনের কাজে ব্যস্ত ছিলেন, তখন বাংলাদেশকে একই রকম চাপ দেয়া হয়েছিল। পিএল-৪৮০ এর গম চালান বাংলাদেশে পাঠানো বন্ধ করেছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ফলে বাংলাদেশে একটি কৃত্রিম দুর্ভিক্ষ সৃষ্টি করা হয়েছিল। বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার করেই জাতির পিতাকে হত্যা করা হয়েছিল। আর এই ষড়যন্ত্র বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নভাবে অব্যাহত ছিলো। ১৯৯৬ সালে যখন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসে তখনও আন্তর্জাতিক চাপ আসে। বাংলাদেশকে গ্যাস বিক্রির জন্য চাপ সৃষ্টি করা হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাধিক অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যেই বলেছেন সে সময়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে গ্যাস দেয়ার জন্য চাপ দেওয়া হয়েছিল এবং বাংলাদেশ সেই চাপে নতি স্বীকার করেনি জন্যই ২০০১ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জিততে পারেনি। আওয়ামী লীগ সভাপতি এটিও প্রকাশ্যে বলেছেন যে, 'র' এর সঙ্গে আঁতাত করে ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত জোটকে জেতানো হয়েছিল। তাহলে কি একই ষড়যন্ত্র নতুন করে হচ্ছে? 

কিন্তু এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গেলে দেখা যাবে যে, বাংলাদেশ একটি বদলে যাওয়া দেশের নাম। গত এক দশকে বাংলাদেশ স্বনির্ভর, স্বাবলম্বী এবং আত্মপ্রত্যয়ী একটি জাতি হিসেবে দাঁড়িয়েছে। কাজেই চাপ দিয়ে বাংলাদেশকে নতজানু করা হবে বা ১৯৭৫ সালে বা ২০০১ সালে যা করা হয়েছিল এখন তা করা যাবে, এটি বাস্তবতা নয়। বরং বাংলাদেশ এখন অনেকের ব্যবসা-বাণিজ্যের তীর্থভূমি এবং আগামী ১০ বছরে বাংলাদেশ বিশ্বে অন্যতম ক্ষমতাধর অর্থনৈতিক শক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে। এরকম বাস্তবতায় যারা বাংলাদেশকে চাপ দিচ্ছে বা বাংলাদেশকে নিয়ে ভিন্ন ধরনের খেলা খেলছেন তারা কতটুকু সফল হবেন, এই প্রশ্ন উঠতেই পারে। কারণ, বাংলাদেশ এখন আর আগের বাংলাদেশ নেই। চাপ দিয়েই সরকারকে নতজানু করার মতো পরিস্থিতিও বাংলাদেশে নেই। আন্তর্জাতিক যে মানবাধিকার সংগঠনগুলো বাংলাদেশের র‍্যাবকে নিষিদ্ধ করার জন্য জাতিসংঘ দাবি করেছেন, এই সংগঠনগুলোর পিছনে কারা মদদদাতা সে প্রশ্ন যেমন রয়েছে, তেমনি তারা এই প্রচেষ্টায় সফল হবে কিনা সেটি নিয়েও কূটনৈতিক অঙ্গনে প্রশ্ন রয়েছে। কারণ, জাতিসংঘ শান্তি মিশনে সবচেয়ে চৌকশ এবং পেশাদার দেশটির নাম হলো বাংলাদেশ। কাজেই, বাংলাদেশকে নিয়ে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে যে নোংরা খেলা হচ্ছে, বাংলাদেশকে চাপ দেওয়ার যে ভয়ংকর কৌশল, সেই কৌশল এবার সফল হবে কিনা সে নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র   গুম   হিউম্যান রাইটস ওয়াচ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

১ দিন ছুটি নিলেই টানা ৫ দিনের ছুটি সরকারি চাকরিজীবীদের!

প্রকাশ: ০৯:০৯ পিএম, ০২ অক্টোবর, ২০২২


Thumbnail ১ দিন ছুটি নিলেই টানা ৫ দিনের ছুটি সরকারি চাকরিজীবীদের!

পূজার ছুটি, ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটি ও সাপ্তাহিক দুদিন ছুটির মধ্যে বাড়তি একদিনের ছুটি নিলেই টানা পাঁচ দিনের ছুটি ভোগ করতে পারবেন সরকারি চাকরিজীবীরা।

চলতি বছরে সরকারি ছুটির তালিকা অনুযায়ী, আগামী বুধবার (৫ অক্টোবর) দুর্গাপূজার জন্য সাধারণ ছুটি। পরের দিন বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) অফিস খোলা।

এরপর শুক্রবার (৭ অক্টোবর) এবং শনিবার (৮ অক্টোবর) সাপ্তাহিক ছুটি। এরপরের দিন রোববার (৯ অক্টোবর) ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে সরকারি ছুটি।  

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) একদিন ছুটি নিলেই দুটি সাধারণ ও সাপ্তাহিক দুদিনের ছুটি মিলিয়ে পাঁচ দিনের ছুটি মিলবে সরকারি চাকরিজীবীদের।  

আর কেউ যদি পূজার ছুটির পর বৃহস্পতিবার অফিস করেন তিনি শুক্র-শনি-রোববার মিলিয়ে একটানা তিন দিনের ছুটি ভোগ করতে পারবেন। তবে, সরকারি চাকরির নিয়মানুযায়ী, কেউ যদি ঐচ্ছিক ছুটি ভোগ করতে চান তাহলে তাকে বছরের শুরুতেই কর্তৃপক্ষকে জানাতে হয়। ঐচ্ছিক ছুটি একদিন ভোগ করা যায়। অনেকেই ঈদের ছুটির সঙ্গে সেই ঐচ্ছিক ছুটি কাটান।  

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এখন যদি কেউ সরকারি ছুটি ও সাপ্তাহিক ছুটির মধ্যে ৬ অক্টোবর ছুটি কাটাতে চান তা তাহলে তার দুই দিন ক্যাজুয়্যাল লিভ (নৈমিত্তিক ছুটি) হিসেবে গণনা হবে। সেজন্য তাকে নিয়মানুযায়ী আবেদন করতে হবে।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

রাজশাহীতে সাংবাদিকের উপর হামলা, আটক ৪

প্রকাশ: ০৫:৪৭ পিএম, ০২ অক্টোবর, ২০২২


Thumbnail রাজশাহীতে সাংবাদিকের উপর হামলা, আটক ৪

রাজশাহীতে সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের রাজশাহীর স্টাফ রিপোর্টার তানজিমুল হকের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। বায়োহার্বস আয়ুর্বেদিক কোম্পানীর কর্মচারিরা হামলা চালিয়ে সাংবাদিক তানজিমুল হকে মারধর ও গাড়ি ভাংচুর করে।

আজ রোববার (২ অক্টোবর) দুপুরে রাজশাহী নগরীর টুলটুলি পাড়া বায়োহার্বস আয়ুর্বেদিক কোম্পানীর মূল ফটকের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সাংবাদিক তানজিমুল হক বাদী হয়ে নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ১২ থেকে ১৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলার সূত্র ধরে পুলিশ ওই কোম্পানীর চারজনকে আটক করেছে।

জানা যায়, রাজশাহী মহানগরীর টুলটুলি পাড়ায় ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় ছোট একটি রাস্তার পাশে বায়োহার্বস আয়ুর্বেদিকের  কোম্পানী রয়েছে। প্রতিদিন এ কোম্পানির ৫-৭ টা গাড়ি রাস্তার উপরে রেখে তারা মালামাল উঠা-নামানোর কাজ করা হয়। এতে ওই রাস্তায় যাতায়াতের ক্ষেত্রে যানবাহন ও পথচারিদের ভোগান্তি পোহাতে হয়।

খবর পেয়ে উক্ত প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এসময় প্রতিষ্ঠানের নানা অনিয়মের অভিযোগে দুই লাখ টাকা জরিমানা করে ভোক্তা অধিকার। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটিকে ছয়মাসের জন্য সিলগালা করা হয়। এদিকে, সাংবাদিক নেতার উপর হামলার প্রতিবাদে বায়োহার্বস আয়ুর্বেদিকের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে রাজশাহীতে কর্মরত সাংবাদিকরা।

রোববার দুপুর ১২ টার দিকে সাংবাদিক তানজিমুল হক সংবাদ সংগ্রহের কাজে বের হওয়ার সময় বায়োহার্বস আয়ুর্বেদিকের মূল ফটকের সামনে গাড়িসহ তিনি আটকা পড়েন। বিষয়টি বায়োহার্বস আয়ুর্বেদিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জানালে তারা সাংবাদিকের ওপর চড়াও হন। এক পর্যায়ে সাংবাদিককে মারধর ও গাড়ি ভাংচুর করে কর্মচারিরা।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

বরিশালে গৃহবধুকে হত্যা, বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশ: ০৫:৩৯ পিএম, ০২ অক্টোবর, ২০২২


Thumbnail বরিশালে গৃহবধুকে হত্যা, বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

যৌতুক না দেওয়ায় বরিশালে গৃহবধূ মোর্শেদা আক্তার সাথীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার প্রতিবাদ এবং জড়িতদের বিচার দাবিতে বরিশালে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে। এ সময় এই ঘটনায় জড়িত ভুক্তভুগীর ননদ লুনা ও ননদের ছেলেসহ তিনজনকে গ্রেফতার দাবি করেন সাথীর ভাই নজরুল ইসলামসহ বক্তারা।

রোববার (২ অক্টোবর) বেলা ১১টায় নগরীর সদর রোডে জেলা সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম ও বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) জেলা কমিটির উদ্যোগে এ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সহসাধারণ সম্পাদক ইমাম হোসেন খোকন, বাংলাদেশ খ্রিস্টান এসোসিয়েশন বরিশালের সাধারণ সম্পাদক এলবার্ট রিপন বল্লভ, জেলা বাসদের সদস্য দুলাল মল্লিক ও মানিক হাওলাদার, জেলা সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সহ-সভাপতি মাফিয়া বেগম, সদস্য শানু বেগম, ছাত্রফ্রন্টের বিএম কলেজ শাখার সাধারণ সম্পদক বিজন সরকার প্রমুখ। 

বক্তারা বলেন, ২০১১ সালে সাথী রানাকে বিয়ের পর জানতে পারে তার আগের একটি বিয়ে রয়েছে ও তিনি মাদক ব্যবসায়ী। তারপরও সংসার টিকিয়ে রাখতে তিনি সব কিছু সহ্য করেছিলেন। এরই মধ্যে স্বামী রানা মাদক মামলা থেকে মুক্তি পেতে এক লাখ টাকা ও ব্যবসার জন্য আরও এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আগস্ট মাস থেকে সাথীকে নির্যাতন শুরু করে। এ ঘটনার বিচার চেয়ে তিনি সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিকে আদালতে মামলা দায়ের করেছিলেন। 

উল্লেখ্য, গত ২৩ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) দিনগত রাতে ননদ লুনা ও ননদের ছেলেসহ তিনজন কেরোসিন দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিলে সাথীর শরীরের ৩০ ভাগ পুড়ে যায়। সাথীর শরীরের আগুন দেওয়ার পর শ্বশুর বাড়ি লোকজন তাকে বরিশাল শের ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে ফেলে রেখে পালিয়ে যান। পরে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে সাত দিন চিকিৎসাধীন থেকে গত শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) মারা যান তিনি।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

‘আইন লঙ্ঘনকারী পুলিশের সদস্যরাও কারাগারে আছেন’

প্রকাশ: ০৩:৫৭ পিএম, ০২ অক্টোবর, ২০২২


Thumbnail আইন লঙ্ঘনকারী পুলিশের সদস্যরাও কারাগারে আছেন

র‍্যাব ও পুলিশের কেউ অপরাধে জড়ালে  ছাড় পাচ্ছেন না বলে উল্ল্যেখ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, ‘র‍্যাব-পুলিশ যেই হোক, শাস্তিযোগ্য অপরাধ করলে তারা কিন্তু শাস্তির বাইরে যায়নি।’

তিনি বলেন, ‘জেলে গিয়ে দেখুন অনেক পুলিশ ও র‍্যাব সদস্য জেল খাটছে। আমরা কাউকে ছাড় দিচ্ছি না। যুক্তরাষ্ট্র যে সংস্কারের কথা বলছে আমরা সবসময় সেটা করছি। আমরা র‍্যাব  আধুনিকায়ন করছি, যেটা প্রয়োজন সেটাই করছি।’

রোববার (২ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর হোটেল প্যান প্যাসেফিক সোনারগাঁও-এ মানবপাচার নিয়ে এক গবেষণা প্রতিবেদন উন্মোচন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, র‍্যাব  সংস্কারের মধ্যেই আছে। র‍্যাবের  কেউ অপরাধে যুক্ত হলে তার ক্ষেত্রেও আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, র‍্যাব এলিট ফোর্স, আমরা বিভিন্ন সময়ে র‍্যাবকে  বিশেষ দায়িত্ব দিয়ে থাকি। তারা তাদের নীতিমালা অনুযায়ী কাজ করে থাকে। আমাদের কাছে যে রিপোর্টটা এসেছে, আমরা তা স্টাডি করছি, যদি কারও ব্যক্তিগত ইনভলভমেন্ট থাকে সেগুলো আমরা দেখছি। আমরা চেক করে দেখছি, ভুলভ্রান্তি থাকলে আমরা দেখছি।

র‍্যাবের কার্যক্রমের  বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘র‍্যাব যখন তৈরি হয় তাদের ট্রেনিং দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।’

গত বৃহস্পতিবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস বলেন, র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে তাদের অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি। জবাবদিহি ও সংস্কার নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে বলে জানান তিনি।

হাসের এমন মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে র‍্যাব সংস্কারের প্রশ্নই ওঠে না’ বলে মন্তব্য করেন এলিট ফোর্সটির নবনিযুক্ত মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেন। শনিবার (১ অক্টোবর) সকালে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

আইন লঙ্ঘনকারী   স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   র‍্যাব-পুলিশ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে যোগদান করেছেন ড. নাহিদ রশীদ

প্রকাশ: ০২:৪৭ পিএম, ০২ অক্টোবর, ২০২২


Thumbnail মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে যোগদান করেছেন ড. নাহিদ রশীদ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের নতুন সচিব হিসেবে যোগদান করেছেন ড. নাহিদ রশীদ। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) তিনি এ মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন।

রোববার (২ অক্টোবর) ড. নাহিদ রশীদ মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে নিজ দাপ্তরিক কার্যক্রম শুরু করেছেন।

এর আগে, গত ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ তারিখে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের  এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক (সচিব) ড. নাহিদ রশীদকে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে বদলি করা হয়।

উল্লেখ্য, ড. নাহিদ রশীদ বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন) ক্যাডারের ১০ম ব্যাচের সদস্য।


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন