ইনসাইড বাংলাদেশ

সমাবেশস্থলে বিএনপি নেতাকর্মীদের জুমার নামাজ আদায়

প্রকাশ: ০২:২০ পিএম, ২৫ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

কুমিল্লা টাউনহল মাঠ ও কুমিল্লার ঈদগাহে জুমার নামাজের  জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

টাউন হল মাঠের জামাতে অংশ নেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড.খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমিন উর রশিদ ইয়াছিন, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক (কুমিল্লা বিভাগ) মোস্তাক মিয়া,দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব জসিম উদ্দিন,  মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক উদবাতুল বারী আবু,সদস্য সচিব ইউসুফ মোল্লা টিপুসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। 

এদিকে মাঠের একপাশে জুমার নামাজ আদায় করেন সাবেক মেয়র বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা মনিরুল হক সাক্কু।

কেন্দ্রীয় বিএনপির ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমিন উর রশিদ ইয়াছিন বলেন, সমাবেশ সমাবেশের জায়গায় নামাজ নামাজের জায়গায়। নেতাকর্মীরা যেন নামাজ পড়তে পারেন তাই টাউনহল ও ঈদগাহ মাঠে জুমার নামাজের জামায়াত অনুষ্ঠিত হয়েছে।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

নওগাঁয় কোটি টাকার মাদক ধ্বংস

প্রকাশ: ০৬:০৪ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

নওগাঁয় প্রায় তিন কোটি টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংসকরণ করা হয়েছে। নওগাঁ-১৪-১৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উদ্যোগে বিভিন্ন বিওপিতে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা এসম মাদক ধ্বংস করা হয়। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার(২৯নভেম্বর) দুপুরে জেলার পত্নিতলা বিজিবি প্রশিক্ষণ মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রংপুর সেক্টরের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবিএম নওরোজ এহসান। 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. আনোয়ার লতিফ বিপিএম(বার), নওগাঁ-১৪ বিজিবির ব্যাটালিয়ন কমান্ডার লে. কর্নেল হামিদ উদ্দিন- পিএসসি, ১৬ বিজিবির ব্যাটালিয়ন কমান্ডার লে. কর্নেল মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান পিএএ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাশেদুল হক. সিভিল সার্জন ডা. আবু হেনা মোহাম্মদ রায়হানুজ্জামান, জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি কায়েস উদ্দিনসহ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এবং প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জব্দকৃত আনুমানিক ২ কোটি ৯০ লাখ ৮ হাজার ১৬০ টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস করা হয়। এসব মাদকদ্রব্যের মধ্যে রয়েছে ইয়াবা ৯০৯পিচ, ভারতীয় মদ ৬ হাজার ৫০১ বোতল, গাঁজা ১৭৮ দশমিক ৯৬ কেজি, ফেনসিডিল ২৪হাজার ২০৫ বোতল, নিষিদ্ধ ট্যাবলেট ৫হাজার ৭৪৬পিচ,নেশা জাতীয় সিরাপ ১০হাজার ৮৬০ বোতল, নেশা জাতীয় ইনজেশন ১১হাজার ৮৪৮পিচ, হেরোইন ৭৭পুরিয়া,গুড়া তামাক ১৬৫দশমিক ৫কেজি, পাতার বিড়ি ৪১হাজার ১৭২ প্যাকেট এবং টেন্ডু বিড়ির পাতা ২১ কেজি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবিএম নওরোজ এহসান বিএসপি, পিএসসি জানান, সমন্বিতভাবে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষকে মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করতে হবে। সরকার সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে বিজিবিকে আরও সম্প্রসারিত করছে। আমাদের সবার লক্ষ্য থাকবে যুব সমাজকে মাদকের ভয়াবহতা থেকে রক্ষা করা। 

মাদক ধ্বংস  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

বরিশালে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশ: ০৫:৫৪ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বরিশালে পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে ঘাতক স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জানা গেছে, বরিশাল নগরীর পলাশপুর এলাকার দলিল উদ্দিন স্কুল সংলগ্ন মৃত শেখ দেলোয়ার হোসেনের ছেলে  শেখ ইকবাল কবির সোমবার রাত ১০টার দিকে বাসার ছাদে বসা ছিলেন । এ সময় পেছন থেকে ইকবালকে এলোপাথাড়ি কোপ দেয় স্ত্রী জাফরিন আরা পপি। তখন ইকবালের ডাক চিৎকার শুনে তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে যায় স্বজনরা।

শেবাচিম হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তারদের পরামর্শে গুরুতর আহত ইকবালকে ঢাকায় নেয়ার পথে রাত ১টার দিকে মারা যান তিনি। এ ঘটনায় বাদী হয়ে কাউনিয়া থানায় মামলা দায়ের করবেন নিহত শেখ ইকবালের ভাতিজা সোহাগ। নিহত শেখ ইকবাল দুই কন্যা সন্তানের জনক ছিলেন। কাউনিয়া থানার সাব-ইন্সপেক্টর এনামুল জানান, গতকাল সোমবার রাতে পলাশপুর এলাকায় স্বামীকে কুপিয়েছে স্ত্রী। এমন সংবাদের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে স্ত্রী জাফরিন আরা পপিকে গ্রেপ্তার করি। তিনি আরো বলেন, নিহতের লাশ ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ বিষয় কাউনিয়া থানার ওসি আব্দুর রহমান মুকুল বলেন, নগরীর পলাশপুর এলাকায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে স্ত্রী। এ ঘটনায় স্ত্রী জাফরান আরা পপিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

কুপিয়ে হত্যা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

বেনাপোলে মদ, গাঁজা, ফেনসিডিলসহ আটক ৩ জন

প্রকাশ: ০৫:৫১ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

যশোরের বেনাপোলে পৃথক অভিযান চালিয়ে ১৭ বোতল মদ, ২০ বোতল ফেনসিডিল ও ৫০০ গ্রাম গাঁজা সহ তিন মাদক কারবারিকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) সকালে বেনাপোল পোর্ট থানাধীন বড় আঁচড়া এমপি মোড়ের সামনে থেকে একটি বাংলাদেশি ট্রাক থেকে ১৭ বোতল ভারতীয় মদ সহ দুলাল মাতব্বর (৪৫) ও একই স্থান থেকে ২০ বোতল ফেনসিডিল একটি মোটরসাইকেল সহ মোঃ রাকিব (২০) কে আটক করেছে পুলিশ। পরে ৫০০ গ্রাম গাঁজা ও একটি মোটরসাইকেল সহ মোঃ মাহাবুর রহমান (৩৪) নামে একজনকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, বরিশাল গৌরনদী এলাকার মৃত হাসেম মাতুব্বর এর ছেলে দুলাল মাতুব্বর, বেনাপোল গয়ড়া গ্রামের মোঃ শরিফুল এর ছেলে রাকিব হোসেন ও নারায়নপুর গ্রামের আলাউদ্দিন বিশ্বাস এর ছেলে মাহাবুর রহমান।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন ভূঁইয়া বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পৃথক ৩ অভিযানে মদ-গাঁজা-ফেনসিডিলসহ তিনজন মাদক কারবারিকে আটক করা হয়। আটক আসামীদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে যশোর বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হবে।

মদ   গাঁজা   ফেনসিডিল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

নাটোরে নকল ড্রিংস ও ভেজাল গুড় তৈরী করায় জরিমানা

প্রকাশ: ০৫:৩৩ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

নাটোরের লালপুরে নকল ড্রিংস উৎপাদন করায় শ্রাবনী আইসক্রীম ফ্যাক্টরীকে এক লাখ ৯০হাজার এবং ভেজাল গুড় উৎপাদন করায় কারখানা মালিককে ৬২হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এসময় প্রায় দুই কেজি গুড় ও ৯’শ লিটার গুড় তৈরীর চিনির সিরাপ ধ্বংস করা হয়েছে।

র‌্যাব-৫ নাটোর ক্যাম্পের কমান্ডার ফরহাদ হোসেন জানান, দীর্ঘ দিন ধরে জেলার লালপুর বাজারে শ্রাবনী আইসক্রীম ফ্যাক্টরী, সুনাম ধন্য প্রাণ কোম্পানীর শিশুদের কোমল পানীয় আইসক্রীম রোবো ড্রিক্সসের ট্রেড মার্ক নকল করে উৎপাদন করে আসছিল।

পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর এবং র‌্যাব যৌথ অভিযান পরিচালনা করে। এসময় আইসক্রীম ফ্যাক্টরীর মালিক কোরবান আলী কে এক লাখ ৯০হাজার টাকা জরিমানা করে ভোক্তা অধিকারের সহকারী পরিচালক মেহেদী হাসান তানভীর।

অপরদিকে, বড়াইগ্রামের আটঘরিয়া ও ভবানীপুর গ্রামে জনস্বাস্থ্যর জন্য ক্ষতিকর চুন, ফিটকিরি, ফেব্রিক্স কালার ও সোডা মিশ্রিত করে ভেজাল গুড় তৈরীর অপরাধে তিনজনকে ৬২হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় ভেজাল গুড়, ভেজাল চিনির সিরাপ সহ অন্যান্যে উপকরণ জব্দ করে ধ্বংস করা হয়।

জরিমানা   ভেজাল গুড়  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

প্রশাসনের নতুন নেতৃত্ব আগামী মাসে

প্রকাশ: ০৫:০০ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

নির্বাচনের আগে মাঠ প্রশাসন ঢেলে সাজানোর পাশাপাশি প্রশাসনের সর্বোচ্চ পদেও ব্যাপক রদবদল হচ্ছে। সরকার নীতিনির্ধারণ প্রশাসনকে ঢেলে সাজাচ্ছে। সরকারের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে যে, আগামী মাসে প্রশাসনের সর্বোচ্চ পদে গুরুত্বপূর্ণ রদবদল হবে। এর মধ্য দিয়ে প্রশাসনের নেতৃত্বে পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে। বর্তমানে প্রশাসনের নেতৃত্বে আছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি আগামী ১৫ ডিসেম্বর অবসরে যাচ্ছেন। তার জায়গায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস বিদায় নিচ্ছেন। গতকাল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের পক্ষ থেকে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় দেওয়া হচ্ছে। আগামী ৮ ডিসেম্বর তিনি ওয়াশিংটনে যাবেন। সেখানে বিশ্বব্যাংকে বাংলাদেশের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক হিসেবে যোগদান করবেন। এর আগে এই পদে ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম। তার স্থলাভিষিক্ত হবেন তিনি। 

গত অক্টোবরের শফিউল আলমের চাকরির মেয়াদ শেষ হলেও নানা রকম কাজের জন্য তিনি বিলম্বে যাচ্ছেন। প্রশাসনের এই শীর্ঘ দুই পদই সিভিল প্রশাসনকে নেতৃত্ব দেয়। এবং তাদের পরিবর্তনের মধ্য দিয়েই প্রশাসনে নির্বাচনের আগে একটা বড় ধরনের রদবদল হতে যাচ্ছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে কবির বিন আনোয়ার দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। তার চাকরির মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে আগামী জানুয়ারিতে। কিন্তু সরকারের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে, তিনি নির্বাচন পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন। অন্তত এক থেকে দু বছর তার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ হতে পারে বলে সরকারের একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। অন্যদিকে  প্রধানমন্ত্রীর নতুন মুখ্যসচিবও নির্বাচন পর্যন্ত তার দায়িত্ব পালন করবেন। 

প্রধানমন্ত্রীর সচিব হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী একান্ত সচিব সালাউদ্দিন আহমেদ। তিনি তোফাজ্জল হোসেন মিয়ার দায়িত্ব নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্রধানমন্ত্রীর সচিব হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। প্রশাসনের শীর্ষ তিন পদে রদবদলের পর বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিবদের বড় ধরনের রদবদল ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। বিশেষ করে যে সমস্ত মন্ত্রণালয়গুলো আগামী নির্বাচন এবং সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেই সমস্ত দপ্তরগুলোতে বড় ধরনের পরিবর্তন হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

ইতোমধ্যে প্রশাসনে দক্ষ এবং যোগ্য সচিবদের একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের পদায়নের পরে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয় গুলোতে পরিবর্তনের আভাস পাওয়া যাচ্ছে। নির্বাচনের আগে প্রশাসনকে ঢেলে সাজানোর অংশ হিসেবে এটি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে মাঠ প্রশাসনে ২৩ জেলায় নতুন জেলা প্রশাসক নিয়োগ করা হয়েছে। আরও অন্তত ২০টি জেলায় জেলা প্রশাসক পরিবর্তন হতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। সরকার নির্বাচনের আগে প্রশাসনের সর্বোচ্চ পর্যায় এবং মাঠ প্রশাসনে পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে দুটি কাজ করতে চাচ্ছে। প্রথমত, অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করার জন্য নতুন নেতৃত্ব সামনে আনা হচ্ছে। দ্বিতীয়তঃ নির্বাচন বিরোধী কোনো চক্রান্ত যেন না কার্যকর হয়, সে ব্যাপারে প্রশাসনকে তৎপরতা করার তাগিদ থেকেও এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। এখন দেখার বিষয় যে প্রশাসনের এই পরিবর্তন রাজনৈতিক উত্তাপে কতটা শীতলতা তৈরি করতে পারে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব   মূখ্যসচিব  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন