ইনসাইড ইকোনমি

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি: ডিজেল লিটারে ৩৪, পেট্রোল ৪৪

প্রকাশ: ১১:০১ পিএম, ০৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি), ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেডে (ইআরএল) পরিশোধিত এবং আমদানি/ক্রয় করা ডিজেল, কেরোসিন, অকটেন ও পেট্রোলের মূল্য সমন্বয় করে ভোক্তা পর্যায়ে পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। ডিজেলের দাম লিটারে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে ১১৪ টাকা, অকটেনের দাম লিটারে ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা এবং পেট্রলের দাম লিটারে ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩০ টাকা করা হয়েছে। আজ রাত ১২টার পর থেকে নতুন এই দর কার্যকর হবে।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জ্বালানি তেলের নতুন এই দর জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ পেট্টোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) বিগত ছয় মাসে (ফেব্রুয়ারি থেকে জুলাই ২০২২ পর্যন্ত) জ্বালানি তেল বিক্রিতে ৮ হাজার ১৪ কোটি টাকার বেশি লোকসান দিয়েছে। বর্তমানে আন্তর্জাতিক তেলের বাজার পরিস্থিতির কারণে বিপিসির আমদানি কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে যৌক্তিক মূল্য সমন্বয় অপরিহার্য হয়ে পড়েছে।

এর আগে, গত বছরের নভেম্বরে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হয়েছিল। সে সময় ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ১৫ টাকা বাড়ানো হয়। তাতে দাম হয়েছিল ৮০ টাকা লিটার। তার আগে এই দুই জ্বালানি তেলের দাম ছিল লিটারে ৬৫ টাকা।

দীর্ঘদিন ধরে করোনাভাইরাস মহামারি ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের ক্রম ঊর্ধ্বগতির মধ্যে কিছুদিন ধরে দেশের বাজারেও বাড়ার আলোচনা শোনা যাচ্ছিল। 

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদকে উদ্ধৃত করে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জনবান্ধব আওয়ামী লীগ সরকার সবসময় আমজনতার স্বস্তি ও স্বাচ্ছন্দ্য বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়। যতদিন সম্ভব ছিল ততদিন সরকার জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির চিন্তা করেনি। অবস্থার প্রেক্ষিতে অনেকটা নিরুপায় হয়েই কিছুটা এডজাস্টমেন্টে যেতে হচ্ছে। ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে সরকার জ্বালানি তেলের মূল্য কমিয়ে দিয়েছিল। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সে অনুযায়ী জ্বালানি তেলের মূল্য পুনর্বিবেচনা করা হবে।

জ্বালানি বিভাগ জানিয়েছে, বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের ঊর্ধ্বগতির কারণে পার্শ্ববর্তী দেশসহ বিভিন্ন দেশে নিয়মিত তেলের মূল্য সমন্বয় করে থাকে। ভারত গত ২২ মে থেকে কলকাতায় ডিজেলের মূল্য প্রতি লিটার ৯২ দশমিক ৭৬ রুপি এবং পেট্রোল লিটার প্রতি ১০৬ দশমিক ০৩ রুপি নির্ধারণ করেছে, যা এখন পর্যন্ত বিদ্যমান আছে। এই মূল্য বাংলাদেশি টাকায় যথাক্রমে ১১৪ দশমিক ০৯ টাকা এবং ১৩০ দশমিক ৪২ টাকা (১ রুপি= গড় ১ দশমিক ২৩ টাকা)। অর্থাৎ বাংলাদেশে কলকাতার তুলনায় ডিজেলের মূল্য লিটার প্রতি ৩৪ দশমিক ০৯ এবং পেট্রোল লিটার প্রতি ৪৪ দশমিক ৪২ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছিল। মূল্য কম থাকায় তেল পাচার হওয়ার আশঙ্কা থেকেও জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়া সময়ের দাবি।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

৩০ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে ডাচ-বাংলার এটিএমসহ ই-ব্যাংকিং সেবা

প্রকাশ: ১১:২০ এএম, ১৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ৩০ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে ডাচ-বাংলার এটিএমসহ ই-ব্যাংকিং সেবা

আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে টানা ৩০ ঘণ্টা কোর ব্যাংকিং সিস্টেম আপগ্রেড করার জন্য ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথ, সিআরএম, পিওএস ও ই-কমার্স, ই-ব্যাংকিং লেনদেন সেবা বন্ধ থাকবে। এসব সেবা নিতে পারবেন না ব্যাংকটির গ্রাহক।

সোমবার (১৫ আগস্ট) ব্যাংকটির জনসংযোগ কর্মকর্তা সগীর আহমেদ এ তথ্য জানিয়েছন।

ব্যাংকটি জানায়, কোর ব্যাংকিং সিস্টেম আপগ্রেড করার জন্য এটিএম, সিআরএম, পিওএস, ই-কমার্স, এনপিএসবি, আইবিএফটি ফান্ড স্থানান্তর, রেমিট্যান্স পাঠানো, ইন্টারনেট ব্যাংকিং, নেক্সাসপে, এজেন্ট ব্যাংকিং, রকেটের কোর ব্যাংকিং সম্পকিত লেনদেন ১৮ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) সকাল ৮টা থেকে ১৯ আগস্ট (শুক্রবার) দুপুর ২টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

১৯৯৫ সালে যাত্রা শুরু করা ডাচ-বাংলা ব্যাংকের গ্রাহক সংখ্যা এখন ৪ কোটি ৩৯ লাখ ৩০ হাজার। সারাদেশে এ ব্যাংকের শাখা রয়েছে ২২০টি। এছাড়া ৪  হাজার ৭৬৬ মত এটিএম বুথ সার্ভিস রয়েছে ব্যাংকটিতে। এ সংখ্যা অন্য যে কোনো ব্যাংকের চেয়ে বেশি।



ডাচ বাংলা ব্যাংক  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

ডলারপ্রতি ১ টাকা লাভ করতে পারবে ব্যাংক

প্রকাশ: ১০:১৭ এএম, ১৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ডলারপ্রতি ১ টাকা লাভ করতে পারবে ব্যাংক

ডলারের বাজারে স্থিতিশীলতা ফেরাতে এবার আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে ডলার কেনাবেচায় দামের পার্থক্য (স্প্রেড) বেঁধে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে ব্যাংকগুলো যে দামে ডলার কিনবে, তার চেয়ে সর্বোচ্চ এক টাকা বেশি দামে বিক্রি করতে পারবে। ব্যাংকগুলো বলছে, এর ফলে প্রবাসী আয়ে প্রতি ডলার ১১০ টাকা ও রপ্তানি বিল নগদায়নে ১০৫ টাকা হলে আমদানিতে ডলারের দাম হবে সর্বোচ্চ ১০৮ টাকা ৫০ পয়সা।

রোববার (১৪ আগস্ট) অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) এবং বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ ডিলারস অ্যাসোসিয়েশনের (বাফেদা) সদস্য ব্যাংকগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ব্যাংকগুলোর পক্ষে অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) ও বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ ডিলার অ্যাসোসিয়েশনের (বাফেদা) নেতারা উপস্থিত ছিলেন। কেন্দ্রীয় ব্যাংকে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার।

ডলারে স্প্রেড সর্বোচ্চ এক টাকা হবে, এটা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বেশ আগের সিদ্ধান্ত। বর্তমান সংকটের কারণে যা কার্যকর নেই। এখন পুরোনো সিদ্ধান্ত আবারও কার্যকর করে সংকট সমাধানের পথ দেখাচ্ছে ব্যাংকগুলো।

সভায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়, ব্যাংকগুলো ডলার বাজার থেকে যে অস্বাভাবিক মুনাফা করেছে, তা ব্যাংকের আয়ে নিতে পারবে না। এখন আমদানিতে কম দাম নিয়ে তা সমন্বয় করতে হবে। ডলারের বাজার কঠোরভাবে তদারকি অব্যাহত রাখা হবে।

জানা যায়, গতকালের সভায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে ব্যাংকগুলোর কাছে পরিস্থিতি জানতে চাওয়া হয়। ব্যাংকগুলো বেশি দামে প্রবাসী আয় আনার বিষয়টি তুলে ধরে। এ জন্য ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যস্থতায় প্রবাসী আয় আনার উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানায়। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই প্রস্তাব নাকচ করে দেয়।

সভায় বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, রপ্তানি ও প্রবাসী আয় দিয়ে আমদানি দায় শোধ করা যাচ্ছে না। এতে যে ঘাটতি হয়েছে, সেই পরিমাণ ডলার বাংলাদেশ ব্যাংক রিজার্ভ থেকে বিক্রি করা হয়েছে। এরপরও কেন এত সংকট হবে। এই সুযোগে ব্যাংকগুলো দাম বাড়িয়ে অস্বাভাবিক মুনাফা করেছে।

সভায় ব্যাংকগুলোকে বুঝেশুনে আমদানি ঋণপত্র খুলতে বলা হয়। আর জানানো হয়, আমদানি ঋণপত্র খোলা কমেছে। প্রবাসী আয়ও বাড়ছে। ফলে সংকট কেটে যাবে। যে রপ্তানি হচ্ছে, তার আয় দ্রুত সময়ে এনে নগদায়ন করতে বলা হয়।

সভা শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ডলারের বাজারে যে টানাপোড়েন চলছে, তা থামাতে পরামর্শমূলক সভা ডাকা হয়েছিল। ব্যাংকগুলো যাতে রপ্তানি বিল দ্রুত দেশে আনে ও নগদায়ন করে, এ জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ব্যাংকগুলোর মধ্যে ডলার কেনাবেচা শুরু করতে বলা হয়েছে। এটা হলে এক-দুই মাসের মধ্যে ডলারের বাজার স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

সিরাজুল ইসলাম আরও বলেন, আমদানি ঋণপত্রে সমন্বয়ে প্রতি ডলারে যত কম মুনাফা করা যায়, তা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। আমদানি ঋণপত্র খোলা কমেছে, ব্যাংকগুলোকে বুঝে ঋণপত্র খুলতে বলা হয়েছে।

ডলার   ব্যাংক  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

রাষ্ট্র মালিকানাধীন তিন ব্যাংকে নতুন এমডি

প্রকাশ: ০৮:৫১ পিএম, ১৪ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail

রাষ্ট্র মালিকানাধীন সোনালী, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকে নতুন তিন ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও সিইও নিয়োগ দিয়েছে সরকার। তাদের তিন বছরের জন্য চুক্তিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

রোববার (১৪ আগস্ট) অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ তাদের নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

প্রজ্ঞাপনে অনুযায়ী, রাষ্ট্র মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও সিইও হয়েছেন মো. আফজাল করিম। তিনি বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্সের এমডি ছিলেন।

অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থানা পরিচালক ও সিইও হয়েছেন মো. মুরশেদুল কবির। এর আগে তিনি সোনালী ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন।

এছাড়া রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও হয়েছেন মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর। তিনি এ ব্যাংকটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্বপাল করে আসছিলেন।

রাষ্ট্র মালিকানাধীন   ব্যাংক   নতুন এমডি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

খোলাবাজারে কমলো ডলারের দাম

প্রকাশ: ০৪:৫৪ পিএম, ১৪ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail খোলাবাজারে কমলো ডলারের দাম

অবশেষে কিছুটা নিম্নমুখী ডলারের বাজার। গত বৃহস্পতিবার ১২০ টাকায় বিনিময় হওয়া এই মার্কিন মুদ্রা আজ রোববার (১৪ আগস্ট) বিক্রি হচ্ছে ১১৫ টাকায়।

মানি এক্সচেঞ্জ হাউজ সূত্রে জানা যায়, বাজারে ডলারের সরবরাহ কিছুটা বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ক্রেতা। ফলে বেশ কিছুদিন ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর, দাম কমতে শুরু করেছে ডলারের। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে আজ প্রতি ডলার বিনিময় হচ্ছে সর্বোচ্চ ১০৪ টাকায়। কোনো কোনো ব্যাংকে এর দাম নেমেছে ১০২ টাকায়। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে যা বিক্রি হয় ১০৫ টাকা দরে।

উল্লেখ্য, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে বিশ্বব্যাপী পণ্যদ্রব্যের দাম বেড়ে গেছে। ফলে বৃদ্ধি পেয়েছে আমদানি ও পরিবহন ব্যয়। এতে দেশে ডলারের সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে।

খোলাবাজার   কমলো   ডলারের দাম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

ডিমের হালি ৫৫ টাকা, আরও বাড়ার শঙ্কা

প্রকাশ: ১০:৩৪ এএম, ১৪ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ডিমের হালি ৫৫ টাকা, আরও বাড়ার শঙ্কা

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির পর থেকে বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম ক্রমান্বয়ে বেড়েই চলেছে। বাজার ঘুরে লক্ষ্য করা যাচ্ছে পণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী। অন্যান্য পণ্যের সঙ্গে আকাশচুম্বী বেড়েছে দিমের দাম।

সপ্তাখানেকের ব্যবধানে প্রতি হালি ডিমের দাম হাফ সেঞ্চুরি পার করেছে। মুরগির লাল ডিমের প্রতি হালিতে বিক্রি হচ্ছে ৫৫ টাকায়। আর ডজন বিক্রি হচ্ছে  ১৫৫ টাকায়। যা সপ্তাখানেক আগে ডজন প্রতি ডিম ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। তা এখন ডজনে ২০-২৫ টাকা বেড়েছে। একটি ডিমের দাম পড়ছে প্রায় ১৫ টাকা।

শনিবার (১৩ আগস্ট) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে ডিমের দামের এমন তথ্য পাওয়া যায়।

এইদিকে পাইকারি বাজার ঘুরলে দেখা যায়,  একই ডিম বিক্রি হচ্ছে ১১ থেকে ১২ টাকায়। প্রতি ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৪৪ থেকে ১৪৫ টাকায়। অন্যদিকে হাঁসের ডিম হালিতে বিক্রি হচ্ছে প্রতি ডজন ১৮০ থেকে ১৯০ টাকায়। অর্থ্যাৎ প্রতি ডিমে ক্রেতাকে খরচ করতে হচ্ছে ১৫ থেকে ১৬ টাকা।

গত শুক্রবার (৫ আগস্ট) মধ্য রাতে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ার পর পরিবহন খরচ বেড়ে যায়। যার প্রভাব পড়ে কাচাবাজারের শাক-সবজি থেকে শুরু করে মুরগীর ডিমের দামও। বাজার ঘুরে দেখা যায় বাজারে ডিমের দাম সব থেকে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। জানতে চাইলে রামপুরা বাজারের এক ডিম বিক্রেতা বলেন, ডিমের দাম বৃদ্ধির প্রধান কারণ উৎপাদন কমে গেছে।

ডিম বিক্রি কমেছে কিনা জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, দাম বাড়লে বিক্রি কিছুটা কমে। তবে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য হওয়ার কারণে তেমন কমে নাই্। দাম বৃদ্ধির কারণে এখন মানুষ একটু কম দামে পাওয়ার আশায় বাজারে এসে ডিম কিনছে। এলাকার দোকানে একটু বেশি দামে কিনতে হয়। এছাড়া অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী দোকানে ডিম রাখছে না অতিরিক্ত দামের কারণে।  

দাম বাড়ার কারণ জানতে চাইলে রমজান বলেন,  পরিবহন খরচ বেড়েছে, মুরগির খাবারের দামও বেড়েছে। সব মিলিয়েই ডিমের দাম বেড়েছে। আরও বাড়বে ডিমের দাম। দুই-একদিনের মধ্যে লাল ডিমের ডজন ১৬০ থেকে ১৬৫ টাকা হবে।

ডিম   হালি   মূল্য বৃদ্ধি   শঙ্কা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন