ইনসাইড গ্রাউন্ড

৪ ফিফটিতে জিম্বাবুয়েকে বড় লক্ষ্য দিল টাইগাররা

প্রকাশ: ০৫:০৫ পিএম, ০৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ৪ ফিফটিতে জিম্বাবুয়েকে বড় লক্ষ্য দিল টাইগাররা

শেষ ৩ ওভারে উঠেছে ২২ রান। শুরুর মতো শেষটাও জিম্বাবুইয়ান বোলাররা একটু আঁটসাঁটই করেছেন। তবে বাংলাদেশ ঠিকই পেরিয়ে গেছে ৩০০ রান। তামিম ইকবাল, লিটন দাস, এনামুল হকের পর অর্ধশতক পেয়েছেন মুশফিকুর রহিম। ৪৯ বলে ৫২ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি, মাহমুদউল্লাহ খেলেছেন ১২ বলে ২০ রানের ক্যামিও। ৫০ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ৩০৩ রান করেছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে সপ্তম বারের মতো ৩০০ পেরোল বাংলাদেশ। মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহর জুটিতে ২৫ বলে উঠেছে ৩৬ রান। 

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে তামিম ইকবাল ও লিটন দাস শুরুটা করেছিলেন সতর্ক। তবে উইকেট হারাননি তাঁরা। দুজনের ১১৯ রানের উদ্বোধনী জুটি বাংলাদেশকে এনে দেয় শক্ত ভিত। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৮ হাজার রান করার পর তামিম ফিরলেও এনামুলকে নিয়ে লিটন যোগ করেন মাত্র ৪৫ বলে ৫২ রান। 

শুরুতে তুলনামূলক ধীরগতির ছিলেন লিটনই। তবে ফিফটির পরপরই গতি বাড়ান, ৫০ পেরোনোর পর মাত্র ১৪ বলে করেন ৩১ রান। শতকের পথে এগোতে থাকা লিটনকে উঠে যেতে হয় হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে। এ ম্যাচে আর ব্যাটিংয়ে নামতে পারেননি বাংলাদেশ ওপেনার, তাঁর ভবিষ্যত জানা যাবে স্ক্যানের পর। 

লিটনকে ওই সময়ে হারালেও বাংলাদেশের সমস্যা হয়নি খুব একটা। তিন বছর পর দলে ফেরা এনামুল হক ও মুশফিকুর রহিম যোগ করেন মাত্র ৭৬ বলে ৯৬ রান। এনামুল পুরো ইনিংসই খেলেন প্রায় একই গতিতে, শেষ পর্যন্ত ১১৭.৭৪ স্ট্রাইক রেটে ব্যাটিং করেন তিনি। 

হারারে স্পোর্টস ক্লাবে যে উইকেটে খেলা হচ্ছে, সেটি মাঠের একেবারে কোণায়। ফলে একদিকে স্কয়ারের বাউন্ডারি বেশ ছোট। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা সেটি কাজে লাগিয়েছেন, আবার তামিমকে ফিরতেও হয়েছে ওদিকে খেলতে গিয়েই।

লিটনের মতো চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছেন জিম্বাবুয়ের রায়ান বার্লও, ১.১ ওভার বোলিং করেই। তুলনামূলক অনভিজ্ঞ বোলিং আক্রমণের সঙ্গে বার্লের চোট ও পিচ্ছিল ফিল্ডিং ভুগিয়েছে স্বাগতিকদের।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

এমবাপেকে সহ্যই করতে পারছেননা নেইমার!

প্রকাশ: ০৩:২৫ পিএম, ১৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail এমবাপেকে সহ্যই করতে পারছেনা নেইমার!

গত দলবলের মৌসুমে প্রায়ন রিলা মাদ্রিদে যোগ দিয়েই ফেলেছিলেন কিলিয়ান এমবাপে। তাকে দলে রাখতে বেশ বড়-সর অফার দেয় পিএসজি।  উচ্চ বেতনের পাশাপাশি ক্লাবের নীতি নির্ধারণের অধিকারও তাকে দেইয়া হয়েছে বলে গুঞ্জন রয়েছে ইউরোপীয় সংবাদ মাধ্যমে। চুক্তি নবাইয়নের পরপরই এম্বাপে বিদায় ক্রতে চেয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমারকে, এমন গুঞ্জনও রয়েছে। 

শুধু তাই নয়, পিএসজি সভাপতি নাসের আল খেলাইফিসহ ক্লাবের অন্যান্য কর্তারাও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। নেইমারের ওপর মোটেও সন্তুষ্ট নন তারা। যে কারণে তাকে বেচে দেওয়ার গুঞ্জনও উঠেছে বেশ। 

অবশেষে সেইসব গুঞ্জনের সত্যতা পাওয়া গেলো নতুন মৌসুমে পিএসজিতে ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনাপ্রবাহে। দারুণ ছন্দে রয়েছেন নেইমার। গত মৌসুমের থেকে এই মৌসুমের নেইমারের মাঠের উপস্থিতিতে পার্থক্যটা আকাশ আর পাতাল। মনে হচ্ছেন ম্যাচে একটু বেশিই মনোযোগী এখন, দলের জন্য সর্বস্ব উজাড় করে দেওয়ার চেষ্টাও দেখা যাচ্ছে। ফিটনেসেই এসেছে দারূণ উন্নতি। নিজেকে প্রমাণ করতে বেশ মরিয়া নেইমার। পিএসজি কর্তাদের অনাস্থার জবাবটা দিতে চাচ্ছেন মাঠের পারফর্ম্যান্স দিয়েই। 

পিএসজি যে এমবাপেকে একটু বাড়তি সুবিধা দিচ্ছে তার প্রমাণ তার প্রমাণটা পাওয়া গেল মঁপেলিয়ের বিপক্ষে ম্যাচে। ম্যাচের ২৩ মিনিটে পেনালটী আদায় করে সেটা নিজেই সেটা নেন এমবাপে। কিন্তু মিস করেন তিনি।

ম্যাচের প্রথমার্ধে আরও একটা পেনাল্টি পায় পিএসজি। এইবার বল ছিলো নেইমারে পায়ে। তবে সেই পেনাল্টির আগেও নেইমারের কাছে গিয়ে কিছু একটা বলছিলেন এমবাপে, এমন একটা ভিডিও ছড়িয়ে ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সকলের দাবি, এমবাপে নেইমারকে পেনাল্টিটা তাকে নিতে দেওয়ার কথাই বলছিলেন। যদিও নেইমার সেই পেনাল্টি নেন, গোল করে ব্যবধানও বাড়িয়ে নেন। 

এই নিয়ে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কেউই কিছু বলেননি। তবে ইউরোপীয় সংবাদ মাধ্যমে জোর গুঞ্জনটা সমর্থকদের মনেও বসতি গেড়েছে বেশ। নেইমারগিয়াবিআর নামের এক অ্যাকাউন্ট থেকে করা টুইট তিনি লাইক দিয়েছেন, যেখানে সেই অ্যাকাউন্ট দাবি করছিল এমবাপের পেনাল্টি নেওয়ার বিষয়টা চুক্তিতেই আছে। সেই টুইটে লাইক পড়েছে নেইমারের। আরও একটা এমবাপে-বিরোধী টুইটেও লাইক আছে তার।

এদিকে গুঞ্জন ছড়াচ্ছে ড্রেসিং রুমে নেইমার-এমবাপের বাগবিতণ্ডারও। সেসবের সত্যতা না মিললেও নেইমারের দুই টুইটে লাইকই বলে দিচ্ছে, ফরাসি তারকার সঙ্গে সম্পর্কটা ভালো যাচ্ছে না মোটেও।


ফুটবল   পিএসজি   নেইমার   ফ্রান্স  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

রাষ্ট্রীয় সম্মাননা পাচ্ছেন বাবর আজম

প্রকাশ: ০২:৫৮ পিএম, ১৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail রাষ্ট্রীয় সম্মাননা পাচ্ছেন বাবর আজম

ক্যারিয়ারের দারুণ এক সময় কাটাচ্ছেন পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বাবর আজম। গেল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলা, আসরের শুরুতে প্রথম ম্যাচেই ভারতের বিপক্ষে অধরা বিশ্বকাপ ম্যাচ জয়ের স্বাদ পাইয়ে দিয়েছিলেন তিনি। ব্যক্তিগত পারফর্ম্যান্সেও সমানভাবে আলো কাড়ছেন প্রতিনিয়ত, আছেন আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে।

এসবের মধ্যেই আরও এক ইতিহাস গড়তে চলেছেন তিনি। সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে বাবর ভূষিত হত্যে যাচ্ছেন পাকিস্তানের তৃতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মানে।

স্বাধীনতার ৭৫তম বার্ষিকী পালন করছে পাকিস্তান। সেই উপলক্ষে ফেডারেল সরকার পাকিস্তান দলের অধিনায়ককে ‘সিতারা-ই-ইমতিয়াজ’ সম্মানে ভূষিত করেছে। মাত্র ২৭ বছর বয়সে এই পুরস্কার পেয়ে এই পুরস্কার পাওয়া পাকিস্তানের সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটারও বনে যাচ্ছেন তিনি।

এর আগের এই রেকর্ডটা ছিল সাবেক অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের। ২০১৮ সালে ৩১ বছর বয়সে এই পুরস্কার পেয়ে এই ইতিহাসটা গড়েছিলেন তিনি।

তবে ক্রিকেটারদের মধ্যে কেবল বাবরই পুরস্কার পাচ্ছেন এমন না। নারী দলের অধিনায়ক বিসমাহ মারুফ পাবেন তমগাহ ইমতিয়াজ। এদিকে প্রাইড অব পারফরম্যান্স পুরস্কার পেতে যাচ্ছেন মাসুদ জান।

পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ড. আরিফ আলভি দেশের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে পাকিস্তানি নাগরিক ও বিদেশি মিলিয়ে ২৫৩ জনকে এই পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছেন। বিভিন্ন ক্ষেত্রে নাগরিকদের শ্রেষ্ঠত্ব ও সাহসিকতার এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। নাম ঘোষণা হলেও এখনই এই পুরস্কার হাতে পাচ্ছেন না বাবররা। ২৩ মার্চ পাকিস্তান দিবসে এ পুরস্কার প্রদান করা হবে ঘোষিতদের।


ক্রিকেট   পাকিস্তান   সম্মাননা   বাবার আজম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

অনুশীলনে ক্লান্ত পরিশ্রান্ত সাকিব

প্রকাশ: ০১:২৭ পিএম, ১৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail অনুশীলনে ক্লান্ত পরিশ্রান্ত সাকিব

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে আলোচনায় বসে চলমান বিতর্কের অবসান করে নেতৃত্বের ভার পেয়েছেন সাকিব আল হাসান। টেস্টের পর সাকিব বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টিরও অধিনায়ক হয়েছেন। তার নেতৃত্বে এশিয়া কাপ, নিউজিল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলবে বাংলাদেশ। 

টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে বিসিবির পছন্দের তালিকায় ছিলেন সাকিব, মাহমুদুল্লাহ, সোহান ও লিটন। লিটন আগেই মানা করে দেওয়ায় তালিকাটা তিনজনে নেমে আসে। সেখানেও আরেক বিপত্তি। বিসিবির প্রথম পছন্দ সাকিব জড়িয়ে যান বেটিং কোম্পানির সঙ্গে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর থেকে ছুটিতে ছিলেন সাকিব। ছিলেন না উইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ও জিম্বাবুয়ে সফরেও। প্রায় মাস খানেক বিরতির পর রবিবার (১৪ আগস্ট) মাঠে ফেরেন সাকিব। 

মাঠে ফেরার প্রথম দিন জিম-রানিং করেই কাটিয়েছেন টি-টোয়েন্টি দলের নতুন অধিনায়ক। এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে দৌড়ে আসতেই যেন ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছিলেন সাকিব। একটু জিরিয়ে নিয়ে আবার দৌড়েছেন। 

বেশ কদিন বিরতির কারণে শরীরের এমন অবস্থা, তা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে। ক্লান্তি কাটিয়ে উঠতেই গতকাল জিম-রানিং করেন প্রায় দুই ঘণ্টা। ধীরে ধীরে ফিরবেন ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলনে। কারণ এশিয়া কাপের আর দেরি নেই। ২৭ আগস্ট থেকে আরব আমিরাতে শুরু হবে এবারের এশিয়া কাপ। ৩০ আগস্ট আফগানিস্তানের বিপক্ষে সাকিবের নেতৃত্বে প্রথম ম্যাচে খেলবে বাংলাদেশ। 



সাকিব আল হাসান   বিসিবি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ওয়ানডে সিরিজের আগে ধাক্কা খেল নিউজিল্যান্ড

প্রকাশ: ০৮:৪৪ এএম, ১৫ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ওয়ানডে সিরিজের আগে ধাক্কা খেল নিউজিল্যান্ড

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে ধাক্কা খেল নিউজিল্যান্ড। অভিজ্ঞ পেসার ম্যাট হেনরিকে এই সিরিজে পাচ্ছে না তারা। চোটের কারণে ছিটকে পড়েছেন তিনি পুরো সিরিজ থেকেই।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট রবিবার (১৪ আগস্ট) জানায়, পাঁজরের চোটে ভুগছেন হেনরি। তার জায়গায় ওয়ানডে সিরিজের জন্য দলে যোগ করা হয়েছে বেন সিয়ার্সকে। গত সপ্তাহে অনুশীলনের সময় পাঁজরের বাঁ পাশে ব্যথা অনুভব করেন হেনরি। উন্নতি না হওয়ায় তাকে নিয়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কিউই বোর্ড।

নিউজিল্যান্ডের প্রধান কোচ গ্যারি স্টেড অবশ্য জানিয়েছেন, গুরুতর নয় হেনরির চোট। সতর্কতার অংশ হিসেবে নেওয়া হয়েছে এই পদক্ষেপ। তাকে দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। দলে থাকলেও ক্যারিবিয়ায় চলমান টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে ছিলেন না হেনরি।

গত জুলাইয়ে আয়ারল্যান্ড সফরে সবশেষ ওয়ানডে খেলেন হেনরি। তিন ম্যাচের সিরিজে ৭ উইকেট নেন ৩০ বছর বয়সী এই পেসার। এখন পর্যন্ত ৬০ ওয়ানডে খেলে তার উইকেট ১১০টি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এরই মধ্যে পথচলা শুরু করা সিয়ার্স এখনও অপেক্ষায় ওয়ানডে অভিষেকের। নিউজিল্যান্ডের হয়ে এখন পর্যন্ত ৬ টি-টোয়েন্টি খেলে ২৪ বছর বয়সী এই পেসারের উইকেট ৬টি।

 


নিউজিল্যান্ড   ম্যাট হেনরি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতলেই ব্যালন ডি'অর?

প্রকাশ: ০৯:০০ এএম, ১৪ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতলেই ব্যালন ডি'অর?

ফুটবলারদের ব্যক্তিগত নৈপুণ্যের জন্য দেওয়া হয়ে থাকে ব্যালন ডি'অর। সেই ধারাবাহিকতায় অন্য বছরেরে মতো এবারো প্রকাশিত হয়েছে ব্যালন ডি’অরের ৩০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা। এই তালিকায় নেই লিওনেল মেসির নাম। শুধু মেসিই নয়, তালিকায় নেই তার বন্ধু ও সতীর্থ নেইমারের নামও।

তবে, মেসি-নেইমারের নাম না থাকলেও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ঠিকই নিজের অবস্থান ধরে রেখেছেন।

২০০৮ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত ১৪ বছরের মধ্যে মোট ১৩ বার দেওয়া হয়েছে পুরস্কারটি (কোভিডের কারণে ২০২০ সালে দেওয়া হয়নি)। এই সময়ে মেসি জিতেছেন রেকর্ড সাতবার আর রোনালদো পেয়েছেন পাঁচবার।

মাঝে ব্যতিক্রম কেবল ২০১৮ সালে, সেবার সেরা হয়েছিলেন লুকা মদ্রিচ। রিয়াল মাদ্রিদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয় ও ক্রোয়েশিয়াকে রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলতে মুখ্য ভূমিকা ছিল তারকা এই মিডফিল্ডারের। তবে কি লিভারপুল কোচের কথা মত চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জিতলে তবেই মিলবে এই উপাধী? 

ব্যালন ডি’অরের জন্য আগে পুরো বছরের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নেওয়া হলেও গত মার্চে নিয়মে পরিবর্তন আনা হয়। এই বছর থেকে বিবেচনা করা হচ্ছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের পুরো একটি মৌসুমের সময়কে (অগাস্ট-জুলাই)।

এইবারের ব্যালন ডি'অর এর লড়াইয়ে এগিয়ে আছেন স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ ফরওয়ার্ড করিম বেনজেমা। গত মৌসুমে রিয়ালের রেকর্ড ১৪তম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ে বড় অবদান ছিল তার। ছিলেন আসরের সর্বোচ্চ স্কোরার (১৫)। এর মধ্যে ১০টিই করেন নকআউট পর্বে। একের পর এক ম্যাচে রিয়ালের রূপকথার প্রত্যাবর্তনের নায়ক তিনি।

লা লিগায় রিয়ালের শিরোপা জয়েও তিনি রাখেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। ৩২ ম্যাচে ২৭ গোল করে লিগে তিনি গোল স্কোরারের তালিকায় যোজন যোজন এগিয়ে ছিলেন বাকিদের চেয়ে।

শুধু ক্লাব ফুটবলেই নয়, জাতীয় দলে গত অক্টোবরে ফ্রান্সের নেশন্স লিগ জয়েও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন বেনজেমা। চার দলের ফাইনালসের সেমি-ফাইনাল ও ফাইনালে একটি করে গোল করেন তিনি। শুক্রবার প্রকাশিত উয়েফার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের লড়াইয়ে শীর্ষ তিন জনের তালিকায়ও আছেন তিনি।

এদিকে, গত কয়েক মৌসুমে বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে তো রীতিমতো ‘গোল মেশিন’ হয়ে ওঠেন লেভানদোভস্কি। সেই ধারাবাহিকতায় গত মৌসুমে দলটির টানা দশম বুন্ডেসলিগা শিরোপা জয়েরও কারিগর তিনি। ৩৫ গোল করে তিনিই ছিলেন আসরের সর্বোচ্চ স্কোরার। ক্লাবের হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৪৬ ম্যাচে জালের দেখা পান ৫০ বার।

মানেও পিছিয়ে নেই। সেনেগালকে আফ্রিকান নেশন্স কাপের শিরোপা এনে দেওয়ার পর আসন্ন ফুটবল বিশ্বকাপ কোয়ালিফাই করানোর মূল কারিগর এই ফরোয়ার্ড। অন্যদিকে লিভারপুলের হয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে করেছেন ১৬ গোল। রেডদের এফএ কাপ এবং লিগ কাপ জয়ের গর্বিত সদস্যও ছিলেন তিনি।

বেনজেমা, লেভান্দস্কি কিংবা মানে, কেউই আগে ব্যালন ডি’অর জেতেননি। একটা লম্বা সময় ধরে এটির লড়াই সীমাবদ্ধ ছিল কেবল মেসি ও রোনালদোর মধ্যে। গত কয়েক বছরে তাদের সেই ধারাবাহিকতায় ছেদ পড়েছে। এই দুজন বাদে শুধু লুয়াক মদ্রিচ একবার জিতেছেন। ব্যক্তিগতভাবে অসাধারণ পারফরম্যান্স দেখানোর পাশাপাশি তাদের ক্লাবের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতাটাও রেখেছে বড় ভূমিকা। এবারও কি তবে তাই হতে যাচ্ছে? সেই উত্তর পেতে অপেক্ষা করতে হবে ব্যালন ডি অর বিজয়ী ঘোষনার দিন পর্যন্ত।

আগামী ১৭ অক্টোবর প্যারিসে জাঁকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ঘোষণা করা হবে এবারের ব্যালন ডি’অর বিজয়ীর নাম।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ   ব্যালন ডি'অর  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন