ইনসাইড গ্রাউন্ড

ভুল সময়ে হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ

প্রকাশ: ০৬:২৬ পিএম, ০৬ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ভুল সময়ে হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ

ফুটবলের ঠাসা সূচি নিয়ে এমনিতেই অন্ত নেই আলোচনা-সমালোচনার। এরই মধ্যে কাতার বিশ্বকাপ সেখানে যোগ করেছে বাড়তি মাত্রা। ইউরোপিয়ান ক্লাব মৌসুমের মাঝামাঝি সময়ে হতে যাওয়া ফিফা আসর ফুটবলারদের ওপর মানসিক ও শারীরিকভাবে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করেন চেলসি কোচ টমাস টুখেল।

ঠিক একই কারণে ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর কড়া সমালোচনা করেছেন ইংলিশ জায়ান্ট লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ। ভুল সময়ে এবারের বিশ্বকাপ হচ্ছে বলে মনে করছেন তিনি।

সাধারণত জুন-জুলাইয়ে আয়োজন করা হয় ফিফা বিশ্বকাপ। তবে ব্যতিক্রম হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপের ক্ষেত্রে। ওই সময়ে মরুর দেশটিতে প্রচণ্ড গরমের কথা মাথায় রেখে চলতি বছরেরে নভেম্বর-ডিসেম্বরে বিশ্বকাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় ফিফা।

টুখেল মনে করেন, বিশ্বকাপ ঘিরে তৈরি আবেগ ও চাহিদা দিনশেষে ফুটবলারদের নিঃশেষ করে ফেলতে পারে। আর ক্লপ তো আসছে বিশ্বকাপের কথা শুনলেই ‘ক্ষেপে যান’। খেলোয়াড়দের সুরক্ষার জন্য সব পক্ষের একসঙ্গে কাজ করা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

কাতার বিশ্বকাপ শুরু হবে আগামী ২১ নভেম্বর, যা চলবে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এর জন্য ১২ নভেম্বর থেকে বিরতি থাকবে প্রিমিয়ার লিগে। বিশ্বকাপ শেষে লিগ আবার মাঠে গড়াবে ২৬ ডিসেম্বর, যা বক্সিং ডে নামে পরিচিত। ইউরোপের অন্য লিগগুলোও এই সময়ে বন্ধ থাকবে।

২০২২-২৩ প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচের আগের দিন শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে টুখেল বলেন, ক্লাব মৌসুমের মাঝামাঝি বিশ্বকাপের কোনো যৌক্তিকতাই খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি।

“এটা যুক্তিসঙ্গত নয়। খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপ নিয়ে খুব মনোযোগী, যা একটি ভালো দিক, কারণ তারা এজন্য শরীরের প্রতি খেয়াল রাখে এবং নিজেদের যত্ন নেয়। একই সঙ্গে এটি খারাপ দিকও, কারণ তারা শুধু ক্লাব নিয়ে নয়, বিশ্বকাপ নিয়েও মনোযোগী। অক্টোবরে বিশ্বকাপ যখন কাছাকাছি আসবে, তখন আমরা দেখতে পারব এটি খেলোয়াড়দের এবং তাদের পারফরম্যান্সকে কীভাবে ও কতটা প্রভাবিত করছে।”

“বিশ্বকাপ খেলোয়াড়দের ওপর মানসিক ও শারীরিকভাবে বড় প্রভাব ফেলবে, তারা নিঃশেষ হয়ে ফিরে আসবে। বড় সাফল্য কিংবা বড় হতাশাও তাদের মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করতে পারে, আর ঠিক তার কয়েকদিন পরই আমাদের বক্সিং ডে। এই সব বিষয় নিয়ে আমি কিছুটা চিন্তিত।”

লিভারপুল কোচ ক্লপ এই পরিস্থিতিকে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে তুলনা করেছেন। তার মতে, সবাই বিষয়টি নিয়ে কথা বলে কিন্তু সমাধানের চেষ্টা কেউ করে না।

"কেউ যদি বিশ্বকাপে ফাইনালে ওঠে এবং জেতে বা হারে অথবা তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ খেলে, তার মানে আগে থেকেই সে ব্যস্ত সময়ের মধ্যে থাকবে, তার এক সপ্তাহ পরই আবার বাকিটা (ক্লাব ফুটবল) শুরু হবে। বিরতিটা যদি সব খেলোয়াড় পেত, তাহলে এটা কোনো সমস্যাই নয়, বরং ভালো।”

“যখন বিষয়টি (শীতকালে বিশ্বকাপ) নিয়ে কথা বলতে শুরু করি, আমি সত্যিই রেগে যাই...বিষয়টা জলবায়ু পরিবর্তনের মতো হয়ে গেছে। আমরা সবাই জানি এই সমস্যার সমাধাণ করতে হবে, কিন্তু কেউ বলছে না আমাদের কী করতে হবে। সব পক্ষকে নিয়ে একটা মিটিং হতে হবে, যেখানে সবাই পরস্পরের সঙ্গে কথা বলবে এবং আলোচনার একমাত্র বিষয় হওয়া উচিত এই খেলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ খেলোয়াড়।”

কোনোরকম দ্বিধা ছাড়াই বিরক্তিভরা কণ্ঠে ক্লপ বলে দিলেন, “এবারের বিশ্বকাপ ভুল কারণে ভুল সময়ে হচ্ছে।”


ফিফা   ফুটবল   বিশ্বকাপ   প্রিমিয়ার লীগ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: ম্যাচ না জিতেলেও মিলছে ৭০ লাখ টাকা

প্রকাশ: ০৫:২৩ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২


Thumbnail টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: ম্যাচ না জিতেলেও মিলছে ৭০ লাখ টাকা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাকী আর ১৫ দিন। ইতোমধ্যে প্রাইজমানি ঘোষণা করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। সব দল মিলিয়ে মোট প্রাইজমানির পরিমাণ ৫.৬ মিলিয়ন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৫৬ কোটি টাকা।

২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতোই সুপার টুয়েলভ খেলা আট দল প্রত্যেকে পাবে ৭০ হাজার ডলার করে (৭০ লাখ টাকা)। অর্থাৎ বাংলাদেশ বিশ্বকাপে একটি ম্যাচও না জিততে পারলেও এই পরিমাণ টাকা নিয়ে ঘরে ফিরবে।

আর প্রতিটি ম্যাচ জয়ের জন্য থাকছে আলাদা প্রাইজমানি। একটি ম্যাচ জিততে পারলে সুপার টুয়েলভ পর্বের প্রতিটি দল পাবে ৪০ হাজার ডলার বা ৪০ লাখ টাকা করে।

মেলবোর্নে ১৩ নভেম্বর শিরোপা উল্লাসে মেতে ওঠা দলটি পাবে ১.৬ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ১৬ কোটি টাকা। রানার্সআপ দল পাবে চ্যাম্পিয়ন দলের অর্ধেক অর্থাৎ ৮ কোটি টাকা (৮ লাখ ডলার)।

৪৫ ম্যাচের এই টুর্নামেন্টে সেমিফাইনালে উঠতে পারলেই ৪ লাখ ডলার নিশ্চিত। অর্থাৎ চারটি দল পাবে ৪ কোটি টাকা করে।

প্রথম রাউন্ডে প্রতি ম্যাচ জয়ের জন্যও সমপরিমাণ (৪০ লাখ টাকা) অর্থ পুরস্কার পাবে দলগুলো। এই পর্বে ১২ ম্যাচে মোট প্রাইজমানি ধরা হয়েছে ৪ লাখ ৮০ হাজার ডলার বা ৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা। প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়া চার দল পাবে ৪০ হাজার ডলার করে (৪০ লাখ টাকা)।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: চ্যাম্পিয়নরা পাবে ১৬ কোটি টাকা

প্রকাশ: ০৫:১৮ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২


Thumbnail টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: চ্যাম্পিয়নরা পাবে ১৬ কোটি টাকা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাকী আর ১৫ দিন। ইতোমধ্যে প্রাইজমানি ঘোষণা করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। সব দল মিলিয়ে মোট প্রাইজমানির পরিমাণ ৫.৬ মিলিয়ন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৫৬ কোটি টাকা।

মেলবোর্নে ১৩ নভেম্বর শিরোপা উল্লাসে মেতে ওঠা দলটি পাবে ১.৬ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ১৬ কোটি টাকা। রানার্সআপ দল পাবে চ্যাম্পিয়ন দলের অর্ধেক অর্থাৎ ৮ কোটি টাকা (৮ লাখ ডলার)।

৪৫ ম্যাচের এই টুর্নামেন্টে সেমিফাইনালে উঠতে পারলেই ৪ লাখ ডলার নিশ্চিত। অর্থাৎ চারটি দল পাবে ৪ কোটি টাকা করে।

২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতোই সুপার টুয়েলভ খেলা আট দল প্রত্যেকে পাবে ৭০ হাজার ডলার করে (৭০ লাখ টাকা)। অর্থাৎ বাংলাদেশ বিশ্বকাপে একটি ম্যাচও না জিততে পারলেও এই পরিমাণ টাকা নিয়ে ঘরে ফিরবে।

আর প্রতিটি ম্যাচ জয়ের জন্য থাকছে আলাদা প্রাইজমানি। একটি ম্যাচ জিততে পারলে সুপার টুয়েলভ পর্বের প্রতিটি দল পাবে ৪০ হাজার ডলার বা ৪০ লাখ টাকা করে।

প্রথম রাউন্ডে প্রতি ম্যাচ জয়ের জন্যও সমপরিমাণ (৪০ লাখ টাকা) অর্থ পুরস্কার পাবে দলগুলো। এই পর্বে ১২ ম্যাচে মোট প্রাইজমানি ধরা হয়েছে ৪ লাখ ৮০ হাজার ডলার বা ৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা। প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়া চার দল পাবে ৪০ হাজার ডলার করে (৪০ লাখ টাকা)।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের শক্তিশালী একাদশ ঘোষণা

প্রকাশ: ০৪:১৮ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ক্রিকেটে উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় আসর এশিয়া কাপ। আর এই আসরের গতবারের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠেয় গত আসরে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশের মেয়েরা। এরই সাথে ক্রিকেটে প্রথম শিরোপা আসে বাংলাদেশে। প্রায় চার বছর পর অনুষ্ঠিত এবারের এশিয়া কাপের আয়োজন করছে বাংলাদেশ।

২০১৮ সালে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। এরপর ২০২০ সালে অনুষ্ঠিত হবার কথা থাকলেও কোভিড-১৯এর কারনে আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। এশিয়ার সাতটি দেশকে নিয়ে আগামী কাল অর্থাৎ পহেলা অক্টোবর থেকে শুরু হবে এই টুর্নামেন্টটি। টুর্নামেন্টের সবকটি ম্যাচ হবে সিলেটে। মোট ২৪ ম্যাচের ৯টি হবে সিলেটের আউটার ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। বাকি ১৫টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

সাতটি দলের অংশগ্রহনে লিগ পদ্ধতিতে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে একে অপরের মুখোমুখি হবে দলগুলো। ১৫ অক্টোবর ফাইনালের মধ্য দিয়ে পর্দা নামবে নারী এশিয়া কাপের।

স্বাগতিক বাংলাদেশসহ টুর্নামেন্টে অংশ নেবে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া সংযুক্ত আরব আমিরাত।

আজ সকাল ৯টায় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে সিলেটে পৌঁছায় বাংলাদেশ দল। এরপর দুপুর ১২টার পর সিলেটে পৌঁছায় সংযুক্ত আরব আমিরাত মালোয়শিয়ার নারী ক্রিকেটাররা।

টুর্নামেন্টের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, একই দিনে সিলেটে পা রাখবে শ্রীলংকা-থাইল্যান্ড পাকিস্তান।

তিনি আরো জানান, ম্যাচ আয়োজনের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত মাঠগুলো। এই টুর্নামেন্টের ম্যাচ দেখতে টিকিটের প্রয়োজন নেই। দীর্ঘ দিন পর স্টেডিয়ামে বসে সকলে খেলা দেখার সুযোগ পাবেন সবাই।

এশিয়া সেরার মুকুট ধরে রাখার জন্য শক্তিশালী দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ দল।

এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দলের একাদশ-

নিগার সুলতানা জ্যোতি (অধিনায়ক), শামীমা সুলতানা, ফারাজানা আক্তার পিংকি, রুমানা আহমেদ, রিতু মনি, লতা মণ্ডল, সালমা খাতুন, সাবানা মুসতারি, নাহিদা আক্তার, মুর্শিদা খাতুন, জাহানারা আলম, ফাহিমা খাতুন, সানজিদা আক্তার মেঘলা, ফারিহা ইসলাম তৃষ্ণা সোহেলি আক্তার।

স্ট্যান্ড বাই: মারুফা আক্তার, শারমিন আক্তার সুপ্তা, নুজহাত তাসনিয়া রাবেয়া খান।


এশিয়া কাপ   নারী ক্রিকেট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাইজমানি ৫৬ কোটি টাকা

প্রকাশ: ০৩:০১ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২


Thumbnail টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাইজমানি ৫৬ কোটি টাকা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দিন গণনা শুরু হয়েছে এরই মধ্যে। বিশ্বকাপ শুরুর ১৫ দিন আগেই আইসিসি এক বিবৃতিতে প্রাইজমানি ঘোষণা করেছে। শুধু শিরোপাজয়ী দলই নয়, অর্থ পুরস্কার পাবে বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া প্রতিটি দলই। রানার্সআপ, সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়া, সুপার টুয়েলভে সরাসরি কোয়ালিফাই কিংবা প্রতিটি ম্যাচ জয়সব দল মিলিয়ে মোট প্রাইজমানির পরিমাণ . মিলিয়ন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৫৬ কোটি টাকা। যার মধ্যে শিরোপাজয়ী দলের পকেটে উঠবে পাবে . মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ১৬ কোটি টাকা এবং রানার্সআপ দল পাবে চ্যাম্পিয়নদের অর্ধেক কোটি টাকা ( লাখ ডলার)

৪৫ ম্যাচের এই টুর্নামেন্টে সেমিফাইনালে উঠতে পারলেই লাখ ডলার নিশ্চিত। অর্থাৎ চারটি দল পাবে কোটি টাকা করে।

২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতোই সুপার টুয়েলভ খেলা আট দল প্রত্যেকে পাবে ৭০ হাজার ডলার করে (৭০ লাখ টাকা) অর্থাৎ বাংলাদেশ বিশ্বকাপে একটি ম্যাচও না জিততে পারলেও এই পরিমাণ টাকা নিয়ে ঘরে ফিরবে।

আর প্রতিটি ম্যাচ জয়ের জন্য থাকছে আলাদা প্রাইজমানি। একটি ম্যাচ জিততে পারলে সুপার টুয়েলভ পর্বের প্রতিটি দল পাবে ৪০ হাজার ডলার বা ৪০ লাখ টাকা করে।

প্রথম রাউন্ডে প্রতি ম্যাচ জয়ের জন্যও সমপরিমাণ (৪০ লাখ টাকা) অর্থ পুরস্কার পাবে দলগুলো। এই পর্বে ১২ ম্যাচে মোট প্রাইজমানি ধরা হয়েছে লাখ ৮০ হাজার ডলার বা কোটি ৮০ লাখ টাকা। প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়া চার দল পাবে ৪০ হাজার ডলার করে (৪০ লাখ টাকা)


টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ   বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ত্রিদেশীয় সিরিজে কপাল পুড়লো মেহেদী ও রিশাদের

প্রকাশ: ১২:০১ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২


Thumbnail ত্রিদেশীয় সিরিজে কপাল পুড়লো মেহেদী ও রিশাদের

টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে। তার আগে বাউন্সি পিচে নিজেদের শক্তি-সামর্থ্য প্রমাণের সেরা সুযোগ আসন্ন ত্রিদেশীয় সিরিজ। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এই সিরিজে বাংলাদেশের আরেক প্রতিপক্ষ পাকিস্তান।

গুরুত্বপূর্ণ এই সিরিজে অংশ নিতে আজ (শুক্রবার) রাতে দেশ ছাড়ছে টাইগাররা। রাত ১১.৫৫ মিনিটে নিউজিল্যান্ডের বিমান ধরবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ২ অক্টোবর সকালে সেখানে পৌঁছানোর কথা রয়েছে তাদের।

তবে ত্রিদেশীয় সিরিজে দলের সঙ্গে যাচ্ছেন না বিশ্বকাপ দলের স্ট্যান্ডবাইয়ে থাকা শেখ মেহেদী হাসান ও রিশাদ হাসান। তবে কপাল খুলেছে বলা যায় অন্য দুই স্ট্যান্ডবাইয়ে থাকা সৌম্য সরকার ও শরিফুল ইসলামের। এই দুইজন যাবেন নিউজিল্যান্ডে।

সর্বশেষ দুবাই সিরিজে থাকলেও রিশাদ এবার যাচ্ছেন না। এশিয়া কাপেও দলের সঙ্গে ছিলেন এই লেগ স্পিনার। তবে শেখ মেহেদী দুবাইতেও যাননি, এবারও যাচ্ছেন না। তাদের না নেওয়ার কোনও কারন বলেনি টিম ম্যানেজম্যান্ট।

আগামী ৭ অক্টোবর বাংলাদেশ-পাকিস্তানের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে ত্রিদেশীয় সিরিজ। প্রতিটি দল একে অপরের বিপক্ষে দুবার মুখোমুখি হবে। ১৪ অক্টোবর ক্রাইস্টচার্চে ফাইনালের মধ্য দিয়ে শেষ হবে তিন জাতির এই সিরিজ।

নিউজিল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে বাংলাদেশ সরাসরি অস্ট্রেলিয়া চলে যাবে। ২৪ অক্টোবর থেকে শুরু হবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন।

বাংলাদেশ স্কোয়াড:

সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, লিটন দাস, ইয়াসির আলী, নুরুল হাসান (সহ-অধিনায়ক), মোস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, তাসকিন আহমেদ, ইবাদত হোসেন, হাসান মাহমুদ, নাসুম আহমেদ ও নাজমুল হোসেন।

স্ট্যান্ডবাই:

শরীফুল ইসলাম, রিশাদ হোসেন, মেহেদী হাসান, সৌম্য সরকার।


সৌম্য সরকার   মেহেদী   রিশাদ   ত্রিদেশীয় সিরিজ  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন