ইনসাইড গ্রাউন্ড

ইউনাইটেডের জালে হালান্ড-ফোডেনের গোলবন্যা

প্রকাশ: ০১:৩০ পিএম, ০৩ অক্টোবর, ২০২২


Thumbnail ইউনাইটেডের জালে হালান্ড-ফোডেনের গোলবন্যা

টানা চার ম্যাচে জয় পাওয়া ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে কোনো সুযোগই দিল না ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। অষ্টম মিনিটে প্রথম পেরেকটা ঠোকেন ফিল ফোডেন। ৩৪ মিনিটে দ্বিতীয় গোল করে সফরকারীদের আত্মবিশ্বাস গুঁড়িয়ে দেন আর্লিং হালান্ড। দুই গোলে পিছিয়ে গিয়ে ম্যাচে আর ফিরতে পারেনি টেন হাগের শিষ্যরা। অন্যদিকে সফরকারীদের জালে একের পর এক বল জড়ানোর উল্লাসে মেতেছে পেপ গার্দ্দিওলার শিষ্যরা।

ইতিহাদ স্টেডিয়ামে রোববার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ৬-৩ গোলের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। উত্তেজনার ম্যানচেস্টার ডার্বিতে হ্যাট্ট্রিক করেছেন সিটির দুই ফরোয়ার্ড আর্লিং হালান্ড আর ফিল ফোডেন। 

ঘরের মাঠে শুরু থেকেই ইউনাইটেডকে চেপে ধরেন সিটি ফরোয়ার্ডরা। বার্নার্ডো সিলভার পাস থেকে স্বাগতিকদের লিড এনে দেন ফিল ফোডেন। এগিয়ে গিয়েও আক্রমণের ধার কমেনি সিটিজেনদের। ৩৪ মিনিটে লিড দ্বিগুণ করেন হালান্ড। সে গোলের রেশ না কাটতেই তিন মিনিট পর আবারও ইউনাইটেডের জালে বল জড়ান নরওয়েজিয়ান ফরোয়ার্ড।

৩ গোলে পিছিয়ে যাওয়ার পর প্রথমার্ধে আক্রমণেই উঠতে পারছিল না ইউনাইটেড। হালান্ড-ফোডেনদের আক্রমণ সামলাতে রক্ষণেই সময় বেশি দিতে হচ্ছিল টেন হাগের শিষ্যদের। তাতেও রক্ষা হয়নি। ৪৪ মিনিটে হালান্ডের পাসে লিডটা ৪-০ তে নিয়ে যান ফোডেন। প্রথমার্ধ শেষ হয় অবিশ্বাস্য এই স্কোরলাইনেই!  

দ্বিতীয়ার্ধে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করে ইউনাইটেড। ৫৬ মিনিটে এরিকসনের অ্যাসিস্টে সিটির জালে বল জড়ান অ্যান্টনি। তাতে খুব বেশি লাভ হয়নি অবশ্য। ৬৪ মিনিটে আবারও গোল করে নিজের হ্যাট্ট্রিক পূরণ করেন হালান্ড। স্কোর হয়ে যায় ৫-১। এই ম্যাচে রেড ডেভিলদের ফেরা কঠিন হয়ে যায় হালান্ডের হ্যাটট্রিকে। 

নিজের হ্যাট্ট্রিকের পর সতীর্থের হ্যাট্ট্রিকেও অবদান রেখেছেন নরওয়েজীয়ান তারকা। ৭২ মিনিটে ফোডেনের তৃতীয় গোলে অ্যাসিস্টাও তারই। হ্যাটট্রিক পূর্ণ করে ফোডেন সিটিকে নিয়ে যান ধরাছোঁয়ার আরও বাইরে। স্কোর হয়ে যায় ৬-১।

৮৪ মিনিট ও অতিরিক্ত সময়ে ইউনাইটেডের হয়ে মার্শাল দুটি গোল শোধ করলেও তাতে শুধু ব্যবধানই কমেছে। ৬-৩ গোলের বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সিটি।


খেলাধূলা   ফুটবল   প্রিমিয়ার লিগ   ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড   ম্যান সিটি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

অতিরিক্ত সময়ে গড়ালো খেলা

প্রকাশ: ১১:০০ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

কাতার বিশ্বকাপে প্রথমাবারের মত অতিরিক্ত সময়ে গড়ালো খেলা। নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে ড্র থাকলে ফল নিষ্পত্তি হয়নি। মাইয়েদার গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যাওয়া জাপান। পেরিসিচের গোলে দ্বিতীয়ার্ধে সমতায় ফেরে ক্রোয়েশিয়া। ম্যাচের বাকি সময়ে দুই দল গোলের জন্য মরিয়া চেষ্টা করলেও তা কাজে আসেনি। ৯০ মিনিট শেষে ১-১ গোলে সমতায় শেষ হয় ম্যাচ।


কাতার বিশ্বকাপ   জাপান   ক্রোয়েশিয়া  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

সমতায় ফিরলো ক্রোয়েশিয়া

প্রকাশ: ১০:২৭ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

প্রথমার্ধে মাইয়েদার গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে গিয়েছিল জাপান। তবে বিরতির পর ফিরে দ্রুতই সমতায় ফিরেছে গত আসরের রানার্সআপরা। ৫৩ মিনিটে লভরেনের ক্রস থেকে দারুণ এক হেডে বল জালে জড়ান ইভান পেরেসিচ। স্বস্তি ফেরে ক্রোয়েটদের ডাগআউটে।


কাতার বিশ্বকাপ   জাপান   ক্রোয়েশিয়া  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ১-০ গোলে এগিয়ে বিরতিতে গেলো জাপান

প্রকাশ: ১০:০১ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

যে দলটি গ্রুপ পর্বে জার্মানি এবং স্পেনের মতো দলকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠে এসেছে, সেই দলটি ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ফেবারিট থাকবে এটাই স্বাভাবিক। অবিশ্বাস্য হলেও সেই দলটির নাম জাপান।

এশিয়ার অন্যতম সেরা এই দলটি এবার যেন পুরোপরি ভিন্নরূপে ধরা দিয়েছে কাতার বিশ্বকাপে। সবচেয়ে বড় কথা, কোয়ার্টারে ফাইনালে ওঠার জন্য একধাপ এগিয়ে রয়েছে জাপান।

গতবারের ফাইনালিস্ট ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সমানতালে খেলে প্রথমার্ধেই ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে জাপান। ৪৩ মিনিটের সময় দাইজেন মায়েদা গোলটি করেন।

বিস্তারিত আসছে...


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

আবারও চমক দিতে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে মাঠে নেমেছে জাপান

প্রকাশ: ০৯:০০ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

গ্রুপ পর্বের চমক দেখিয়ে নকআউট পর্বে জায়গা করে নিয়েছে জাপান। গ্রুপের দুই পরাশক্তি জার্মানি এবং স্পেনকে হারিয়েছে তারা। প্রথম ম্যাচে জার্মানিকে ২-১ গোলে হারিয়েছিলো। পরের ম্যাচেই তারা হেরে যায় ক্রোয়েশিয়ার কাছে। শেষ ম্যাচে স্পেনকে হারয়ে দেয় ২-১ গোলের ব্যবধানে।

গ্রুপের সেরা হয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠে জাপান। অন্যদিকে ‘এফ’ গ্রুপে বেলজিয়াম এবং কানাডাকে বিদায় করলেও মরক্কোর সঙ্গে পেরে ওঠেনি গত আসরের চ্যাম্পিয়নরা। মরক্কো হয়েছে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন এবং ক্রোয়েশিা হলো রানারআপ।

নির্ধারিত সূচি হিসেবে দ্বিতীয় রাউন্ডে মুখোমুখি হলো এশিয়ার অন্যতম প্রতিনিধি জাপান এবং ইউরোপের ক্রোয়েশিয়া। কেমন হবে আজকের এই ম্যাচটি? নকআউট যেহেতু, ক্রোয়েশিয়া মরণপণ চেষ্টা করবে জাপানকে গতিতে পেছনে ফেলতে। অন্যদিকে জাপান গ্রুপ পর্বে যেভাবে খেলেছে, তাতে তাদেরকে পেছনে রাখার কোনো সুযোগনেই।

দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে দুই দল মুখোমুখি হওয়ার আগে দেখে নিন তাদের একাদশ-

জাপান একাদশ: সুইচি গোন্ডা, মায়া ইয়োশিদা, সোগো তানিগুচি, তাকেহিরো তোমিয়াসু, হিদেমাসা মোরিতা, ওয়াতারু এন্ডো, ইয়োতো নাগাতোমো, জুনিয়া ইতো, দাইজেন মায়েদা, দাইচি কামাদা, রিতসু দোয়ান।

ক্রোয়েশিয়া একাদশ: ডোমিনিক লিভাকোভিচ, জসকো জিভার্ডিওল, ডেজান লোভরেন, বোরনা বারিসিচ, জোসিপ জুরানোভিচ, মার্সেলো ব্রোজোভিচ, মাতেও কোভাসিচ, লুকা মদরিচ, ব্রুনো পেটকোভিচ, ইভান পেরিসিচ, আন্দ্রে ক্রামারিক।

কাতার বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

কিংবদন্তি পেলেকে নিয়ে ছড়ানো তথ্য ভুল, জানালেন পেলের মেয়ে

প্রকাশ: ০৮:১১ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ফুটবল মহাযজ্ঞের সবচেয়ে ব্যয়বহুল আসর বসেছে কাতারে। ফুটবলের জীবন্ত কিংবদন্তি প্রায় সবাইকে দেখা দিয়েছে গ্যালারিতে। কিন্তু ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম তারকা পেলেকে দেখা যায়নি কাতারে। বিশ্বকাপ শুরুর আগেই জানা গিয়েছে কাতার আসার ইচ্ছে থাকলেও শারীরিক অবস্থা ভ্রমণের উপযোগী না হওয়ায় ২০২২ বিশ্বকাপে মাঠের বাহিরে দেখা যায়নি ফুটবলের জীবন্ত কিংবদন্তি পেলেকে। ব্যাক্তিগত চিকিৎসকের পরামর্শে মূলত কাতার আসেননি পেলে। ১৯৪০ সালে জন্ম নেওয়া ব্রাজিল কিংবদন্তি পেলেকে নিয়ে শনিরবার গণমাধ্যম মাধ্যমে গুজব ছড়ানো হয়। গুজবে উল্লেখ করা হয় ব্রাজিলের হয়ে তিন বিশ্বকাপ জেতা পেলের চিরবিদায়। মুহূর্তে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে খবরটি।

পেলের  পরিবার থেকে অভিযোগ করা হয় পেলেকে নিয়ে গনমাধ্যমে আসা খবরটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। পেলের মেয়েদের একজন ফ্লাভিয়া নাসিমেন্তোর দাবি করেন তিনটি বিশ্বকাপ জয়ী ফুটবলার পেলেকে হাসপাতালেই নেওয়া হয়নি।

গতবছর থেকেই বৃহদান্ত্রে টিউমার ধরা পড়ে পেলের। বৃহদান্ত্র টিউমারের জন্য অস্ত্রোপাচারও করা হয় কিংবদন্তিকে। নিয়মিত চলে কেমোথেরাপি। সার্বক্ষণিক তত্বাবধায়নে রেখেছেন পেলের ব্যাক্তিগত চিকিৎসকরা। গত বুধবার  নিয়মিত চিকিৎসার অংশ হিসেবে সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয় পেলেকে। এরপরেও ব্রাজিলের দৈনিক পত্রিকায় চাপা হয় ক্যান্সারের চিকিৎসায় কেমোথেরাপিতে পেলের শরীর এখন আর সাড়া দিচ্ছে না, তাকে প্যালিয়েটিভ কেয়ার ইউনিটে নেওয়া হয়েছে। সাথে সাথে খবরটি নাড়িয়ে দেয় পুরো ক্রীড়াঙ্গনকে। পেলেকে নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে ভক্ত সমর্থকরা। গনমাধ্যমে আসা খবরটির পরেই  

গনমাধ্যমে আসা খবরটির পরেই ওইদিন রাতে হাসপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়, শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণের চিকিৎসায় ভালো সাড়া দিচ্ছে পেলের শরীর এবং আপাতত স্থিতিশীল আছেন তিনি। তবে তার চিকিৎসকদের কেউ প্যালিয়েটিভ কেয়ারে রাখার তথ্য নিশ্চিত করেননি। ফলে গনমাধ্যমে আসা তথ্যটি ভুল প্রমাণিত হয়।

এবার পেলের মেয়ে নাসিমেন্তো গ্লোবো টিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বললেন, একটু বেশিই ভুল খবর ছড়ানো হয়েছে তার বাবার শারীরিক অবস্থা নিয়ে।

এটা একদমই ঠিক হয়নি। মানুষ বলছে যে, তিনি শেষ অবস্থায় আছেন, ওনাকে প্যালিয়েটিভ কেয়ারে রাখা হয়েছে। আমাদের বিশ্বাস করুন, তেমনটা ছিল না। পেলের মেয়ে নাসিমেন্তোর কথায় সত্যি হোক এমনটা চায় কোটি কোটি পেলে ভক্ত।

 


ব্রাজিল   পেলে   ফুটবল  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন