ইনসাইড গ্রাউন্ড

ইনজুরিতে নেইমার, শঙ্কা জেগেছে পরবর্তী ম্যাচ নিয়ে

প্রকাশ: ০৯:৫৯ এএম, ২৫ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বিশ্বকাপ মিশনে সার্বিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয় তুলে নেয় ব্রাজিল। কোচ তিতে সহ দলের সবাই এ জয়ে আনন্দিত। দলের সবাই যখন ম্যাচ জয়ে আনন্দ ভাগাভাগি করছে দলের অন্যতম তারকা তখন নিজের ইনিজুরি নিয়ে শঙ্কায়। তাই নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় পেলেও চিন্তার ভাজ পড়েছে ব্রাজিলিয়ানদের। ম্যাচের ৮০ মিনিটে নেইমারকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেন কোচ তিতে। এর আগেই মাঠে বসে যেতে দেখা গিয়েছে নেইমারকে। পরে চিকিৎসকরা আসেন। এক সময় দেখা যায় স্ট্রেচার নিয়ে আসা হয়েছে পিএসজির এ তারকাকে মাঠ থেকে নেওয়ার জন্য। কিন্তু নেইমার পায়ে হেঁটেই মাঠের বাহিরে যান। তবে ডাগ আউটে বসে দেখা গেলো জার্সি দিয়ে মুখ ঢেকে আছেন। হয়তো শঙ্কায় পড়ে গেছেন তিনি, তার এই ইনজুরি কতটা গভীর তা নিয়ে। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা গেছে, গোড়ালিতে চোট পেয়েছেন নেইমার। এর একটি অংশ বেশ ফুলে থাকতেও দেখা যায়।  ইনজুরি কতটা গভীর সেটা এখন পর্যন্ত নিশ্চিত নয়। ব্রাজিল দলের চিকিৎসক রদ্রিগো লাসমার বলেন নেইমার গোড়ালিতে আঘাত পেয়েছেন তবে আঘাত কতটুকু গুরুতর তা জানার জন্য অপেক্ষা করতে এক থেকে দুই দিন।

শতভাগ ফিট হয়েই কাতারে বিশ্বকাপ খেলতে এসেছেন নেইমার। সার্বিয়ার বিপক্ষে ব্রাজিলের আক্রমণ তৈরি করে দেওয়ার দায়িত্বে খেলেছেনও দারুণ। দুটি গোলেই ছিল অবদান। তবে বেশ কয়েকবার সার্ব ডিফেন্ডারদের কড়া ট্যাকলের শিকার হয়েছেন তিনি। সব মিলিয়ে ফাউলের শিকারই হয়েছেন ৯বার। নেইমারকে দমিয়ে রাখা যেনো একমাত্র দায়িত্ব ছিলো সার্বিয়ার রক্ষনভাগের। বর্তমানে ব্রাজিল দলের অন্যতম তারকা যে কোন সময়ে বদলে দিতে পারেন খেলার পরিস্থিতি। বিপক্ষ শিবির তাই আতঙ্কে থাকে নেইমারকে নিয়ে। ব্রাজিল সমর্থকরা চাইবেন দলের অন্যতম ভরষার কান্ডারি সুস্থ হয়ে  যেনো খেলেন পরবর্তী ম্যাচের একাদশে।


কাতার বিশ্বকাপ   নেইমার   ইনজুরি   ব্রাজিল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

গনসালো রামোসের হ্যাটট্রিকে শেষ আটে পর্তুগাল

প্রকাশ: ০৩:০১ এএম, ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

পর্তুগাল নাকি সুইজারল্যান্ড? এমন প্রশ্নের উত্তর দেয়াটা কঠিনই। কেননা ইউরোপে দুই দলের লড়াই যে হয় সমানে সমান। তবে দোহার লুসাইল স্টেডিয়ামে সুইসদের পেছনে ফেলে সচলতি বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয় নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট পেয়েছ পর্তুগীজরাই। ৬-১ গোলে সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে শেষ আটে পা দিলো রোনালদোরা।

ম্যাচের ৫ম মিনিটে ই পর্তুগাণের অর্ধে এমবোলোর আক্রমণ থেকে গোলের সুযোগ সৃষ্টি হয়নি। তবে ম্যাচের ১৭ মিনিটে গনসালো রামোসের গোলে এগিয় গেলো পর্তুগাল। জোয়াও ফিলিক্সের কাছ থেকে বলৈ পেয়ে দুর্দান্ত এক শটে বল জালে জড়ান তিনি। ১-০ গোলে এগিয়ে য়ায় পর্তুগাল। কিছুই করার ছিলো না সুইস গোলরক্ষক ইয়ান সোমারের। 

২২ মিনিটে ওটাভিউর শট কাজে আসেনি। সেখান থেক ফিরতি বল পেয় কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন গনসালো রামোস। ১৯৬৬ সালের পর নকআউটে গোল করে সর্বকনিষ্ঠ গোলদাতার তালিকায় নাম লেখান তিনি। ৩০ মিনিটে ডিয়েগো কস্তার জন্য এগিয় যেতে পারেনি সুইসরা। 

৩৩ তম মিনিটে দ্বিতীয়ে গোল করে পর্তুগালের হয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন পুর্তুগিজ ডিফেন্ডার পেপে। ৩৮ মিনিটে ফ্রুয়েলার ও গ্রানিত শাকার শট কাজে লাগেনি সুইজারল্যান্ডের। ফলে সমতায় ফেরা হয়নি সুইসদের। প্রথমার্ধে এগিয়ে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় পর্তুগাল।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান বাড়ান গনসালো রামোস। ৫১ মিনিটে গোল করে ব্যবধান ৩-০ করেন তিনি। ৫৩ ও ৫৪ মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ হাতছাড়া করেস পেপে ও জোয়াও ফিলিক্স। তিন মিনিট পরেই ব্যবধান ৪-০ করেন গুইয়েরাো। ৫৮ মিনিটে দলের হয়ে একটি নগোল পরিশোধ করেন আকাঞ্জি। 

৫৯ মিনটে হলুদ কার্ড দেখেন সুইজারল্যান্ডের কোমার্ট। ৬৭ মিনটে গোল করে চলতি বিশ্বকাপের প্রথম হ্যাটট্রিকের কৃতিত্ব গড়েন গনসালো রামোস। ৭১ মিনিটে জাকারিয়া গোলে সুযোগ নষ্ট করেন। ৭৪ মিনিটে জোয়াও ফিলিক্সের বদলে মাঠে সামেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ৮০ মিনিটে শাকার নেয় শট বারের উপর দিয়ে চলে যায়। পরের মিনিটে শাকিরির শটও ব্যর্থ হয়। তবে ম্যাচের যোগ করা সময়ে রাফায়েল লিয়াও গহোল করে ব্যবধান ৬-১ করেন।

রেফারির শেষ বাঁশি বাজার সাথে চলতি বিশ্বকাপের সবেচেয় বড় ব্যবধানের জয় নিয় মাঠ ছাড়ে পর্তুগাল। কোয়ার্ঠার ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ আগের ম্যাচে জয় পাওয়া মরক্কো।


কাতার বিশ্বকাপ   পর্তুগাল   সুইজারল্যান্ড   নকআউট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

দ্বিতীয় গোল পর্তুগালের

প্রকাশ: ০১:৪৩ এএম, ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ম্যাচের ১৭ মিনিটে গনসালো রামোসের গোলে এগিয় গেলো পর্তুগাল। জোয়াও ফিলিক্সের কাছ থেকে বলৈ পেয়ে দুর্দান্ত এক শটে বল জালে জড়ান তিনি। ১-০ গোলে এগিয়ে য়ায় পর্তুগাল। কিছুই করার ছিলো না সুইস গোলরক্ষক ইয়ান সোমারের। 

কাতার বিশ্বকাপ, পর্তুগাল, সুইজারল্যান্ড, নকআউট

৩৩ তম মিনিটে দ্বিতীয়ে গোল করে পর্তুগালের হয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন পুর্তুগিজ ডিফেন্ডার পেপে। ৩৮ মিনিটে ফ্রুয়েলার ও গ্রানিত শাকার শট কাজে লাগেনি সুইজারল্যান্ডের। ফলে সমতায় ফেরা হয়নি সুইসদের।


কাতার বিশ্বকাপ   পর্তুগাল   সুইজারল্যান্ড   নকআউট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

এগিয়ে গেলো পর্তুগাল

প্রকাশ: ০১:২৮ এএম, ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ম্যাচের ১৭ মিনিটে গনসালো রামোসের গোলে এগিয় গেলো পর্তুগাল। জোয়াও ফিলিক্সের কাছ থেকে বলৈ পেয়ে দুর্দান্ত এক শটে বল জালে জড়ান তিনি। ১-০ গোলে এগিয়ে য়ায় পর্তুগাল। কিছুই করার ছিলো না সুইস গোলরক্ষক ইয়ান সোমারের।


কাতার বিশ্বকাপ   পর্তুগাল   সুইজারল্যান্ড   নকআউট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

রোনালদোকে ছাড়াই সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নেমেছে পর্তুগাল

প্রকাশ: ০১:০৮ এএম, ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

কোয়ার্টার ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে মাঠে নেমেছে ইউরোপের দুই দল পর্তুগাল ও সুইজারল্যান্ড। দুই দলই আক্রমণাত্নক ফুটবল খেলতে পছন্দ করে। দুই দলেই রয়েছে বেশ কয়েকজন তারকা ফুটবলার, যারা সারা বছর মাঠ মাতান ইউরোপ-স্পেনের নামি-দামী লিগগুলোয়। তাই জমজমাট একটি ম্যাচ দিয়ে রাউন্ড অব সিক্সটিনের পর্দা নামার অপেক্ষায় সারা বিশ্বের অগণিত ফুটবল ভক্তরা।

দুই দলই নিজেদের সেরা একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে। লক্ষ্য মাঠে নিজেদের পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করে শেষ আটে জায়গা করে নেয়া। বিশ্বকাপ শিরোপার স্বপ্ন টিকিয়ে রাখতে হলে এ ম্যাচে জ্বলে উঠতে হবে পর্তুগীজ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। আর তাদেরকে রুখে দিতে সুইসদের বড় ভরসা থাকবে গ্রানিত শাকা ও জর্দান শাকিরির উপর।

দুই দলের একাদশ ও ফর্মেশন:

পর্তুগাল একাদশ: 

দিয়েগো কস্তা, পেপে, রুবেন দিয়াজ, রুবেন নেভেস, রাপাল গুয়েরেইরো, দালোত, বার্নার্ডো সিলভা, উইলিয়াম, ব্রুনো ফার্নান্দেজ, হোয়াও ফেলিক্স এবং গোঞ্জালো রামোস।

ফর্মেশন: ৪-১-২-১-২

সুইজারল্যান্ড একাদশ:

ইয়ান সমার, ফার্নান্দেজ, আকানজি, শার, রদ্রিগেজ, জাকা, ফ্রেইলর, রেইডার, শো, ভারগাস, এমবোলু।

ফর্মেশন: ৪-২-৩-১


কাতার বিশ্বকাপ   পর্তুগাল   সুইজারল্যান্ড   নকআউট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

পর্তুগাল-সুইজারল্যান্ড: ম্যাচ প্রেডিকশন

প্রকাশ: ১২:২৯ এএম, ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

দ্বিতীয় রাউন্ডের শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে পর্তুগাল ও সুইজারল্যান্ড। কোয়ার্টার ফাইনালে পা রাখা শেষ দলের নাম জানা যাবে এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে। গ্রুপ পর্বে প্রায় একই রকম অভিজ্ঞতার মুখে পড়তে হয়েছিলো দুই দলকেই।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে ঘানাকে ৩-২ গোলে হারিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করে পর্তুগাল। পরের ম্যাচে উরুগুয়েকে ২-০ গোলে হারিয়ে 'এইচ' গ্রুপ থেকে প্রথম দল হিসেবে রাউন্ড অব সিক্সটিন নিশ্চিত করে রোনালদোরা। তবে শেষ ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে ২-১ গোলে হেরে যায় দলটি।

অন্যদিকে সুইজারল্যান্ডের শুরুটা হয়েছিলো মন্থর। ক্যামেরুনের বিপক্ষে ১-০ গোলের কষ্টার্জিত জয়। পরের ম্যাচে একই ব্যবধানে হার ব্রাজিলের কাছে। তবে হাই-ভোল্টেজ ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী সার্বিয়ার বিপক্ষে ৩-২ গোলে জিতে পরের রাউন্ডে খেলা নিশ্চিত করে সুইসরা।

এই ম্যাচে তাই নিশ্চিত অর্থে কাউকে ফেভারিট বলা যাচ্ছে না। কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার সামর্থ্য রয়েছে দুই দলেরই। তবে অভিজ্ঞতা আর শক্তির বিচারে এগিয়ে থাকবে পর্তুগালই। আর দলটির সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর শেষ বিশ্বকাপ হওয়ায় নিজেদের সেরাটাই দিতে চাইবেন পর্তুগীজ ফুটবলাররা। আর তেমনটা হলে ম্যাচে ৩-১ গোলে জিতবে পর্তুগাল- এমনটাই মত অনেক বিশ্লেষকদের। অন্যদিকে গ্রানিত শাকা-জর্ডান শাকিরিরাও ছেড়ে কথা বলবে না। ইউরোপের দুই দলের লড়াই হওয়ায় তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বীতা হবে ম্যাচটিতে। ২-১ গোলে ফার্নান্দো সান্তোসের দলকে হারাতে পারে সুইজারল্যান্ড। দুই দলের শেষ দেখায় জয় পেয়েছিলো সুইসরাই।


কাতার বিশ্বকাপ   পর্তুগাল   সুইজারল্যান্ড   নকআউট  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন