ইনসাইড গ্রাউন্ড

ইনজুরিতে নেইমার, শঙ্কা জেগেছে পরবর্তী ম্যাচ নিয়ে

প্রকাশ: ০৯:৫৯ এএম, ২৫ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বিশ্বকাপ মিশনে সার্বিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয় তুলে নেয় ব্রাজিল। কোচ তিতে সহ দলের সবাই এ জয়ে আনন্দিত। দলের সবাই যখন ম্যাচ জয়ে আনন্দ ভাগাভাগি করছে দলের অন্যতম তারকা তখন নিজের ইনিজুরি নিয়ে শঙ্কায়। তাই নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয় পেলেও চিন্তার ভাজ পড়েছে ব্রাজিলিয়ানদের। ম্যাচের ৮০ মিনিটে নেইমারকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেন কোচ তিতে। এর আগেই মাঠে বসে যেতে দেখা গিয়েছে নেইমারকে। পরে চিকিৎসকরা আসেন। এক সময় দেখা যায় স্ট্রেচার নিয়ে আসা হয়েছে পিএসজির এ তারকাকে মাঠ থেকে নেওয়ার জন্য। কিন্তু নেইমার পায়ে হেঁটেই মাঠের বাহিরে যান। তবে ডাগ আউটে বসে দেখা গেলো জার্সি দিয়ে মুখ ঢেকে আছেন। হয়তো শঙ্কায় পড়ে গেছেন তিনি, তার এই ইনজুরি কতটা গভীর তা নিয়ে। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা গেছে, গোড়ালিতে চোট পেয়েছেন নেইমার। এর একটি অংশ বেশ ফুলে থাকতেও দেখা যায়।  ইনজুরি কতটা গভীর সেটা এখন পর্যন্ত নিশ্চিত নয়। ব্রাজিল দলের চিকিৎসক রদ্রিগো লাসমার বলেন নেইমার গোড়ালিতে আঘাত পেয়েছেন তবে আঘাত কতটুকু গুরুতর তা জানার জন্য অপেক্ষা করতে এক থেকে দুই দিন।

শতভাগ ফিট হয়েই কাতারে বিশ্বকাপ খেলতে এসেছেন নেইমার। সার্বিয়ার বিপক্ষে ব্রাজিলের আক্রমণ তৈরি করে দেওয়ার দায়িত্বে খেলেছেনও দারুণ। দুটি গোলেই ছিল অবদান। তবে বেশ কয়েকবার সার্ব ডিফেন্ডারদের কড়া ট্যাকলের শিকার হয়েছেন তিনি। সব মিলিয়ে ফাউলের শিকারই হয়েছেন ৯বার। নেইমারকে দমিয়ে রাখা যেনো একমাত্র দায়িত্ব ছিলো সার্বিয়ার রক্ষনভাগের। বর্তমানে ব্রাজিল দলের অন্যতম তারকা যে কোন সময়ে বদলে দিতে পারেন খেলার পরিস্থিতি। বিপক্ষ শিবির তাই আতঙ্কে থাকে নেইমারকে নিয়ে। ব্রাজিল সমর্থকরা চাইবেন দলের অন্যতম ভরষার কান্ডারি সুস্থ হয়ে  যেনো খেলেন পরবর্তী ম্যাচের একাদশে।


কাতার বিশ্বকাপ   নেইমার   ইনজুরি   ব্রাজিল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

গ্রুপ সেরার হাতছানি স্পেনের, ঘুরে দাড়াতে চায় জাপান

প্রকাশ: ০১:০২ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

'এফ' গ্রুপের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে স্পেন ও জাপান। খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে এই ম্যাচে জয় তুলে নিলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউটে চলে যাবে ২০১০ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ড্র করলেও পরের রাউন্ডের টিকিট পাবে দলটি। তবে ম্যাচটি বাঁচা মরার লড়াই জাপানের জন্য। প্রথম ম্যাচে জার্মানিকে হারিয়ে চমক দেখালেও, পরের ম্যাচে কোস্টা রিকার কাছে হেরে সমীকরণটা কঠিন বানিয়ে ফেলেছে জাপান। এ ম্যাচে তাই জয় তুলে নিতে চায় এশিয়ার দলটি।

দুই দলের একাদশ ও ফর্মেশন:

স্পেন একাদশ:

উনাই সিমোন, সিজার পাকুয়েতা, পাও তোরেস, আলেজান্দ্রো বাল্দে, রদ্রি, সার্জিও বুসকেতস, গাভি, পেদ্রি, আলভারো মোরাতা, নিকো উইলিয়ামস, দানি ওলমো।

ফর্মেশন: ৪-৩-৩

জাপান একাদশ:

সুচি গন্দা, শোগো তানিগুইচি, কোউ ইতাকুরা, মায়া ইয়োশিদা, ইয়োতো নাগাতোমো, হিদেমাসা মরিতা, জুনায়া ইতো, আও তানাকা, তাকেফুসা কুবো, দাইচি কামাদা, দাইজেন মায়েদা।

ফর্মেশন: ৩-৪-৩


কাতহার বিশ্বকাপ   স্পেন   জাপান   খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

নক আউটে যাবার শেষ চেষ্টায় মুখোমুখি জার্মানি-কোস্টা রিকা

প্রকাশ: ১২:৫৬ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বিশ্বকাপে টিকে থাকার লড়াইয়ে মাঠে নেমেছে জার্মানি-কোস্টা রিকা। নক আউটে যাওয়ার লক্ষ্য নিয়ে লড়াই করবে উভয় দল। কাতার বিশ্বকাপে শুরুটা বাজে ভাবে শুরু করেছে দুই দলই। স্পেনের বিপক্ষে ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছে কোস্টা রিকা, অন্যদিকে জার্মানি হেরেছে শক্তির বিচারে বেশ পিছিয়ে থাকা জাপানের বিপক্ষে। শেষ ম্যাচে কোস্টা রিকাকে হারালেও প্রাথর্না করতে হবে স্পেনের বিপক্ষে জাপানের হারের জন্য। এ দিকে কোস্টা রিকা যদি পুরো ম্যাচ জার্মানদের রুখে দিতে পারে অথবা ড্র করতে পারে তাহলে নক আউট পর্বে উঠে যাবে গ্রুপের দ্বিতীয় দল হিসেবে।

টিকে থাকার লড়াইয়ে আজকে যে একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে দুই দলঃ

জার্মানির একাদশঃ নয়ার( গোলরক্ষক), রাম, লিওন, রুডিগার, সুলে, গুন্দোগান, কিমিখ, মুসিয়ালা, সানে, ন্যাব্রি, মুলার।

ফর্মেশনঃ ৪-২-৩-১

কোস্টা রিকার একাদশঃ নাভাস(গোলরক্ষক), ডুয়ার্টে, ভারগাস, ওয়াস্টন, ওভিয়েডো, টেজেডা, জন পাবলো, ফুলার, ব্রান্ডোন, ক্যাম্পবেল, ভেনেগাস।

ফর্মেশনঃ ৩-৪-২-১


কাতার বিশ্বকাপ   জার্মানি   কোস্টা রিকা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ইতিহাস গড়ার অপেক্ষায় স্টেফানি ফ্রাপার্ট

প্রকাশ: ১২:২০ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ফুটবল ইতিহাসে নতুন এক মাইলফলক গড়তে যাচ্ছেন ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। ১৯৩০ সাল থেকে ২০২২ বিশ্বকাপ অব্দি যে দৃশ্য এখনো দেখেনি ফুটবল বিশ্ব। সে দৃশ্যের মঞ্চায়ন হতে যাচ্ছে আজ কাতারের আল বাইত স্টেডিয়ামে। প্রথমবারের মত বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনা করবেন কোন নারী রেফারি। আজ রাত ১ টায় জাপান কোষ্টারিকা মধ্যকার ম্যাচের দায়িত্ব পালন করবেন তিন নারী রেফারি। এরই মধ্যে ম্যাচটির ম্যাচ অফিশিয়ালসদের নাম জানিয়ে দিয়েছে ফিফা। সে তালিকায় আছে ফ্রান্সের স্টেফানি ফ্রাপার্ট, ব্রাজিলের নেউজা ব্যাক ও মেক্সিকোর কারেন ডিয়াজ।

এক বিবৃতিতে ফিফা জানায়, এই ম্যাচে মূল রেফারি হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করবেন ৩৮ বছর বয়সী ফ্রাপার্ট। এবং তার সহযোগি হিসেবে থাকবেন আরও দুই নারী রেফারি। প্রথম নারী রেফারি হিসেবে ছেলেদের বৈশ্বিক আসরে দায়িত্ব পালন করে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখতে চলেছেন ফ্রাপার্ট।

বিশ্বকাপে প্রথম হলেও, ছেলেদের ম্যাচ পরিচালনার অভিজ্ঞতা রয়েছে ফ্রাপার্টের। এর আগে পুরুষ বিশ্বকাপ বাছাই, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে রেফারি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন ফ্রাপার্ট। সেটিও ছিলো ফ্রান্সে জন্মগ্রহণ করা ফ্রাপার্টের প্রথম নারী রেফারি হিসেবে ম্যাচ পরিচালনার রেকর্ড। এবার বিশ্বকাপের মঞ্চে ইতিহাস গড়তে যাচ্ছেন তিনি।

কাতার বিশ্বকাপে সি গ্রুপের একটি ম্যাচে চতুর্থ রেফারি দায়িত্ব পালন করেছেন ফ্রাপার্ট। পোল্যান্ড-মেক্সিকোর ম্যাচে চতুর্থ রেফারি হিসেবে ছিলেন তিনি।

কাতার বিশ্বকাপ পরিচালনার জন্য মোট ৩৬ জন রেফারি রয়েছেন দায়িত্বে। এর মধ্যে রেফারির প্যানলে রয়েছেন পাঁচ জন নারী। ফ্রাপার্ট ছাড়াও ফিফার তালিকায় কাতার বিশ্বকাপের জন্য থাকা বাকি চারজন হলেন,আফ্রিকার রুয়ান্ডার, সালিম মুকানসানগা ও জাপানের ইয়ামাশিয়াতা এবং ইয়োশিমি।


কাতার বিশ্বকাপ   ফ্রাপার্ট   নারী রেফারি   ফিফা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

'ই' গ্রুপের ম্যাচ প্রেডিকশন

প্রকাশ: ১২:০৪ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

কাতার বিশ্বকাপের 'ই' গ্রুপ থেকে এখনো রাউন্ড অব সিক্সটিন নিশ্চিত করতে পারেনি কোন দল। তবে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সে পথে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে স্পেন। সমান ৩ পয়েন্ট করে পাওয়া জাপান ও কোস্টা রিকারও সম্ভাবনা রয়েছে পরের রাউন্ডে যাওয়ার। তবে এই গ্রুপে সবচেয়ে ব্যাকফুটে রয়েছে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে কোস্টা রিকাকে ৭-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করেছিলো স্পেন। তবে পরের ম্যাচে জার্মানির সাথে ১-১ গোলে ড্র করে দলটি। ফলে পরের রাউন্ডে যাওয়াটা একরকম নিশ্চিতই। এই ম্যাচে জিতলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউটে যাবে পেদ্রি-গাভিরা। ড্র' করলেও তারা পাবে শেষ ষোল'র টিকিট। অন্যদিকে এশিয়ার দল জাপান প্রথম ম্যাচে জার্মানিকে হারিয়ে চমক দেখায়। তবে পরের ম্যাচে দুর্ভাগ্যজনক ভাবে হেরে যায় কোস্টা রিকার কাছে। তবে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে তাদেরও। তবে সে জন্য স্পেনের বিপক্ষে পয়েন্ট হারানো চলবে তাদের।

দুর্দান্ত ছর্দে রয়েছেন লুইস এনরিকের শিষ্যরা। এ ম্যাচে ফুটবল বোদ্ধাদের বাজির ঘোড়াও স্পেন। ৩-১ গোলে তারা হারাতে পারে জাপানকে। তবে লড়াই করবে জাপানও। ফলে জিততে পারে তারাও। ২-২ গোলে ড্র কিংবা ২-১ গোলে তাদের জয়ের পক্ষে মত দিয়েছেন অনেকেই।

আরেক ম্যাচে বিশ্বকাপের ভাগ্য নির্ধারণ হবে ইউরোপের পাওয়ার হাউস জার্মানির। দুটি ম্যাচ খেলে একটিতেও জয়ের দেখা পায়নি দলটি। স্পেনের বিপক্ষে ড্র করে এখনো পরের রাউন্ডের ক্ষীণ সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রেখেছেন নয়্যার-মুলাররা। তবে নকআউটে যেতে তাদের উতরাতে হবে কঠিন এক সমীকরণ। শুধু জিতলেই হবে না কোস্টা রিকাকে হারাতে হবে বড় ব্যবধানে। অন্যদিকে স্পেনের কাছে গোল বন্যায় বিধ্বস্ত হওয়ার পর পরের ম্যাচে জাপানকে হারিয়ে ঘুরে দাড়িয়েছে কোস্টা রিকা। জার্মানিকে হারালে তাদের সামনেও থাকবে শেষ ষোল'তে যাওয়ার সুযোগ। তবে সে পথে পার্থক্য গড়ে দিতে পারে গোল ব্যবধান।

সাবেক ও বর্তমান ফুটবলারদের মতামত অনুযায়ী, এ ম্যাচে জার্মানির জয়ের সম্ভাবনাই বেশি। ব্যবধান হতে পারে ৩-০।


কাতার বিশ্বকাপ   'ই' গ্রুপ   ম্যাচ প্রেডিকশন   স্পেন  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

গ্রুপ সেরা হয়ে শেষ ষোল'য় মরক্কো

প্রকাশ: ১১:৩৩ পিএম, ০১ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বিশ্বকাপের প্রথম দুই ম্যাচে দাপুটে ফুটবল খেলে দ্বিতীয় রাউন্ডের দাবি জানিয়ে রেখেছিলো মরক্কো। শেষ ষোলতে যেতে তাদের সামনে সমীকরণটাও ছিলো পরিষ্কার। কানাডাকে হারালেই পেয়ে যাবে রাউন্ড অব সিক্সটিনের টিকিট। তবে হারলে বা ড্র করলে পরতে হতো অনিশ্চয়তার মুখে। তবে সেসব সমীকরণ পেছনে ফেলে কানাডাকে ২-১ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করলো আফ্রিকার দলটি।

দোহার আল থুমামা স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্নক ফুটবল খেলতে থাকে মরক্কো। ম্যাচের ৪ মিনিটেই কানাডার ফুটবলারদের ভুলে বল পেয়ে যায় মরক্কোর ফরোয়ার্ড হাকিম জিয়েখ। সেখান থেকে দারুণ এক শটে গোল করে দলকে প্রথম সাফল্য এনে দেন তিনি। ২৩ মিনিটে ব্যবধান বাড়ায় মরক্কো। মাটি কামড়ে নেয়া একটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করে বল জালে জড়ান ইউসোফ নেসরি। ২-০ গোলে এগিয়ে যায় আফ্রিকার দলটি।

দুই গোল হজমের পর ম্যাচে ফেরার চেষ্টা চালায় কানাডা। তবে সুবিধা করে উঠতে পারছিলো না। তবে ম্যাচের ৪০ মিনিটে নায়েফ আগুয়ার্ডের আত্নঘাতী গোলে ব্যবধান কমায় কানাডা। যা চলতি বিশ্বকাপের প্রথম আত্নঘাতী গোল। নির্ধারিত সময়ে আর কোন গোল না হলে ২-১ এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় মরক্কো।

প্রথমার্ধে মরক্কোর সামনে দাড়াতে না পারলেও, দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাড়ানোর চেষ্টা চালায় কানাডার। খেলায় ফিরতে মরিয়া হয়ে মরক্কোর রক্ষণে একের পর এক আক্রমণ চালাতে থাকে দলটি। ৫৬ মিনিটে সমতায় ফেরার সুযোগ এসেছিল কানাডার সামনে। তবে তা কাজে লাগাতে পারেনি দলটি। 

৭১ মিনিটে আটিবা হাচিনসনের হেড ক্রসবারে লেগে ফিরে আসলে আরেকটি সুযোগ হাতছাড়া হয় কানাডার। ম্যাচে আর তেমন কোন সুযোগও সৃষ্টি করতে পারেনি দুই দল। নির্ধারিত সময়ে গোল আদায়ে ব্যর্থ হয় মরক্কো-কানাডার ফুটবলাররা। আর প্রথমার্ধের সাফল্য ধরে রেখে জয়ের আনন্দে মেতে উঠে আশরাফ হাকিমি-জিয়েখরা।

এ জয়ে তিন ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পরের রাউন্ড নিশ্চিত করলো মরক্কো। আর কোন ম্যাচ না জিতেই বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিলো কানাডা।


কাতার বিশ্বকাপ   মরক্কো   কানাডা   আল থুমামা স্টেডিয়াম  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন