ইনসাইড গ্রাউন্ড

আর্মব্যান্ড পড়ে হলুদকার্ড খেতে চান না হাজার্ড

প্রকাশ: ০২:০৮ পিএম, ২৫ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ফিফা বিশ্বকাপের শুরু থেকেই কাতারের সমালোচনা করে আসছে ইউরোপের দেশগুলো। মূলত কাতার বিভিন্ন বিষয়ের উপর নিষেদাজ্ঞা দেওয়ায়, আয়োজক দেশটির উপর সমালোচনার তীর ছুড়ে পশ্চিমা দেশগুলো। কাতারের নিষিদ্ধ করার বিষয় গুলোর মধ্যে অন্যতম সমকামিদের কাতারে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা। যেটা ইউরোপের দেশ গুলোতে বৈধ। এমন কি পশ্চিমা দেশগুলোতে সমকামিদের অধিকার নিয়ে বেশ সচেতন তারা। সমকামিদের সমর্থনে ওয়ান লাভ আর্মব্যান্ড পড়ে মাঠে নামার কথা ছিলো ইংলান্ড এবং ওয়েলসের ফুটবলারদের। ফিফার কঠোর অবস্থানে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে দল দুইটি।

জার্মানি, নেন্দারল্যাণ্ডস, ওয়েলস ইংল্যান্ড সমর্থকরা এটা নিয়ে এতটাই মাতামাতিতে ব্যস্ত যে মাঠের খেলায় মনোযোগ নেই তেমন। আর সেটাতেই বেঁধেছে বিপত্তি।

বিশ্বকাপে জার্মানি তাদের প্রথম ম্যাচে হারে জাপানের বিপক্ষে। সে ম্যাচে জার্মানির খেলোয়াড়রা মাঠের ভেতর মুখে হাত দিয়ে নীরব প্রতিবাদ করে ফিফার সিদ্ধান্তের প্রতি। আর সেটার কারণেই সমালোচকরা বলছেন মাঠের খেলায় নজর দিলে হয়তো হারতে হতো না জার্মানদের। বেলজিয়া তারকা ফুটবলার এডিন হাজার্ডও তাই মনে করেন। বিশ্বকাপের নিজেদের প্রথম ম্যাচে কানাডার বিপক্ষে জয়লাভ করে বেলজিয়াম। ম্যাচ শেষে সমকামীদের সমর্থনেওয়ানলাভআর্মব্যান্ড সম্পর্কে এডিন হাজার্ড ম্যাচ শেষে বলেন, জার্মানি হয়তো আরও ভালো করতে পারতো। কিন্তু তারা জিততে পারেনি। আমরা এখানে ফুটবল খেলতে এসেছি, এখানে কোন রাজনৈতিক বার্তা দিতে আসিনি। এসব বার্তা দেওয়ার জন্য অন্য আরও অনেকে রয়েছে। আমাদের ফুটবলের দিকে মনোযোগ দেয়া উচিতবেলজিয়ামের এ তারকা আর ও জানান মাঠের বাহিরে ঘটনার চাপ খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সে পড়বে। আর্মব্যান্ড পড়ে হলুদকার্ড খেতে চান না এইডিন হাজার্ড।

 

 


কাতার বিশ্বকাপ   এইডিন হাজার্ড   আর্মব্যান্ড   হলুদকার্ড  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

দোহায় জাপানি রূপকথা

প্রকাশ: ০২:৫৯ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

এবারের বিশ্বকাপের চমক যেন থামছেই না। অন্যান্য বিশ্বকাপের থেকে তাই কাতারে অনুষ্ঠিত ফুটবল বিশ্বকাপের ২২তম আসরকে একটু আলাদাই বলা যায়। কাগজে-কলমে শক্তিশালী দলগুলোকে তুলনামূলক ছোট দলগুলো খাবি তো খাওয়াচ্ছেই, মাঠের খেলাতেও মন জয় করছেন ফুটবল প্রেমীদের। তেমনই আরেকটি ফুটবলীয় ক্ল্যাসিকের সাক্ষী হলো দোহার আল রাইয়ানের খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে আসা দর্শকরা। দুর্দান্ত প্রতাপে বিশ্বকাপ শুরু করা স্পেনকে ২-১ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে রাউন্ড অব সিক্সটিনে উঠে গেলো জাপান।

ম্যাচের শুরু থেকে দুই দলই চড়াও হওয়ার চেষ্টা করেন। ৭ মিনিটে সার্জিও বুসকেতসের শট বারের উপর দিয়ে চলে যায়। পরের মিনিটে ভাল সুযোগ তৈরি করেছিলো জাপান। তবে জুনায়া ইতোর শটটি সাইড নেটে লাগে। ৯ মিনিটে দানি ওলমোর শট সরাসরি গ্লাভসে জমা করেন জাপান গোলরক্ষক। ১২ মিনিটে দারুণ এক গোছালো আক্রমণে দলেক প্রথম সাফল্য এনে দেন আলভারো মোরাতা। সিজার আজপিলিকুয়েতার ক্রস থেকে হেডে গোল করে এগিয়ে ১-০ গোলে এগিয়ো দেন দলকে।

২৫ মিনিটে মোরাতা আরেকটি সুযোগ পেয়েছিলেন। তবে অফ সাইডের ফাঁদে পড়েন তিনি। ৩৬ মিনিটে কামাদার নেয়া শট ফিরিয়ে দেন ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে ফিরে প্রতিহত হয়। ম্যাচের ৩৮ মিনিটে বুসকেতসকে ফাউল করে ম্যাচের প্রথম হলুদ কার্ড দেখেন কোউ ইতাকুরা। ৪২ মিনিটে দারি ওলমোর আরেকটি প্রচেষ্টা নষ্ট হয়। প্রথমার্ধের শেষ দিকে আরো দুটি হলুদ কার্ড দেখেন জাপানের ফুটবলাররা।

পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জাপান। তবে বিরতির থেকে ফিরেই চমক দেখায় এশিয়ার দলটি। বাল্দের ভুলে স্পেনের রক্ষণভাগে বল পেয়ে যান জুনায়া ইতো। ৪৮ মিনিটে সেখান থেকে দুর্দান্ত এক শটে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান রিতসু ডোয়ান। সেই গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই আবার চমক জাপানের। দলকে সমতায় ফেরানোর পাঁচ মিনিট পর তার অ্যাসিস্ট থেকে গোল করে জাপানকে এগিয়ে দেন আও তানাকা। ২-০ গোলে এগিয়ে যায় জাপান। তবে বল লাইনের বাইরে চলে যাওয়ার আবেদন জানায় স্প্যানিশ ফুটবলাররা। বেশ খানিকটা সময় নিয়ে ভিএআর রেফারির সাথে আলোচনা করে গোলের সিদ্ধান্ত বহাল রাখেন অনফিল্ড রেফারি।

খেলায় ফিরতে মরিয়া হয়ে ৫৭ মিনিটে মোরাতা এবং নিকো উইলিয়ামসকে উঠিয়ে নেন লুইস এনরিকে। তাদের বদলি হিসেবে মাঠে নামেন ফেরান তোরেস ও মার্কো অ্যাসেনসিও। ৬২ মিনিটে মায়েদা উঠিয়ে আসানোক মাঠে নামায় জাপান। ছয় মিনিট পর একাদশে আরো দুটি পরিবর্তন আনে স্পেন। গাভি-বাল্দের পরিবর্তে মাঠে ঢোকেন আনসু ফাতি ও জর্দি আলবা। ৭০ মিনিটে ব্যবধান আরো বাড়ানোর সুযোগ ছিলো জাপানের। তবে সে সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি বদলি হিসেবে নামা আসানো।

৭৪ মিনিটে অ্যাসেনসিও ও ৮০ মিনিটে ওলমো সুযোগ হারান দলকে সমতায় ফেরাতে। হতহাশা বাড়ে স্পেনের। ৮৩ মিনিটে ইতাকুরা আক্রমণে উঠলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি। দুই মিনিট পর অ্যাসেনসিও'র আরো একটি আক্রমণ প্রতিহত হয়।  দুই মিনিট দলকে সমতায় ফেরানোর সুযোগ হাতাছাড়া করেন অ্যাসেনসিও। ৮৯ মিনিটে অ্যাসেনসিও'র নেয়া শট আটকে দেন জাপানের গোলরক্ষক গন্দা। ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে দানি ওলমোও ব্যর্থ হন দলকে সমতায় ফেরাতে।

রেফারির শেষ বাঁশি বাজার সাথে সাথে উল্লাসে ফেঁটে পড়েন জাপানের ফুটবলার ও সমর্থকরা। তিন ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে স্পেনকে টপকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউটে পর্ব নিশ্চিত করলো এশিয়ার দলটি। আর হারের তেতো স্বাদ পেলেও গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে পরের রাউন্ডে চলে গেছে স্পেন।


কাতার বিশ্বকাপ   স্পেন   জাপান   খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

সমান সমান লড়াই হচ্ছে জার্মান-কোস্টা রিকার

প্রকাশ: ০২:৪২ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ভাগ্য নির্ধারনী ম্যাচে জার্মানদের জিততেই হবে এমন ম্যাচের শুরু থেকেই একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে মুলাররা। প্রথমার্ধ্বে ১-০ গোলে বিরতিতে যায় জার্মান শিবির। নক আউটে যেতে হলে জিততেই হবে কোস্টা রিকার বিপক্ষে। কিন্তু  দ্বিতিয়ার্ধ্বেরর ৫৮ মিনিটের মাথায় দলকে সমতায় ফেরান  কোস্টা রিকার মাঝ মাঠের খেলোয়াড় তেজেডা। গোল উদযাপনের রেষ না কাটতেই আবারও গোল দেন কোস্টা রিকা। এবার ম্যাচের ৭০  মিনিটে কোস্টারিকার হয়ে গোলটি করেন ভার্গাস।  দলকে এগিয়ে নেন ২-১ গোলে।কিন্তু সহ্য হয়নি জার্মানির খেলোয়াড় হাবার্টযের। তিন মিনিট পরেই গোল দিয়ে দলকে সমতায় ফেরান এ খেলোয়াড়।

এখন পর্যন্ত ২-২ গোলে লড়াই করছেন দুই দল।


কাতার বিশ্বকাপ   জার্মানি   কোস্টা রিকা  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

গোল সমতায় আনলেন কোস্টা রিকা

প্রকাশ: ০২:৩০ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

প্রথমার্ধ্বে পিছিয়ে থাকা কোস্টা রিকা দ্বিতীয়ার্ধ্বের ৫৮ মিনিটেই পেয়ে যান প্রথম গোলের দেখা। কোস্টা রিকার মাঝ মাঠের খেলোয়াড় ওয়াই তেজেডা করেন গোলটি। ১-১ সমতায় মাঠের লড়াই জমিয়ে উঠেছে দুই দলের। কোস্টা রিকা গোলের দেখা পেলেও নিজেদের পায়ে বল রাখার সুযোগ পাচ্ছেন খুব কম।

এখন পর্যন্ত দুই দলের গোল সংখ্যা সমান ।


কাতার বিশ্বকাপ   কোস্টা রিকা   জার্মানি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বিরতি থেকে ফিরেই চমক জাপানের

প্রকাশ: ০২:২১ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জাপান। তবে বিরতির থেকে ফিরেই  চমক দেখায় এশিয়ার দলটি। বাল্দের ভুলে স্পেনের রক্ষণভাগে বল পেয়ে যান জুনায়া ইতো। ৪৮ মিনিটে সেখান থেকে দুর্দান্ত এক শটে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান রিতসু ডোয়ান। সেই গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই আবার চমক জাপানের। দলকে সমতায় ফেরানোর পাঁচ মিনিট পর তার অ্যাসিস্ট থেকে গোল করে জাপানকে এগিয়ে দেন আও তানাকা। ২-০ গোলে এগিয়ে যায় জাপান।


কাতার বিশ্বকাপ   স্পেন   জাপান   খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

প্রথমার্ধ্বে নিজেদের টিকিয়ে রাখলো জার্মানি

প্রকাশ: ০২:১৫ এএম, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

গ্রুপ পর্বের কঠিন সমীকরণ মাথায় নিয়ে আল বাইত স্টেডিয়ামে মাঠে নামে জার্মানি-কোস্টা রিকা। কোস্টা রিকাকে হারাতে পারলেই কেবল সুযোগ রয়েছে জার্মানদের সামনে নক আউটে যাওয়ার। জিততে পারলে উঠে যাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে। অন্যথায় বিদায় নিতে হবে নয়্যার,মুলারদের। নক আউট ভাগ্য নিশ্চিতের লক্ষ্যে শুরু থেকেই কোস্টা রিকার রক্ষনভাগ দখলে নেয় জার্মানির আক্রমণ ভাগের খেলোয়াড়রা। একের পর এক আক্রমণের পসরা সাজিয়ে বসে জার্মানরা। সফলতা আসতেও দেরি হলো না। ম্যাচের দশ মিনিটের মাথায় ডেভিড রামের অসাধরণ পাসে কোস্টা রিকার জালে বল পাঠায় দশ নম্বর জার্সি পরিহিত ন্যাব্রি। দারুণ এক হেডে গোলটি করেন তিনি। প্রথমার্ধ্বে একক আধিপত্য বিস্তার করে জামাল মুসিয়ালারা।

প্রথমার্ধ্বের শেষ মুহূর্তে এসে গোলের একটি দারুণ সুযোগ পেয়েছিলো কোস্টা রিকা, কিন্তু জার্মান গোল কিপার ন্যুয়ারের নিপুণ দক্ষতায় ব্যর্থ হয় সে সুযোগটিও। ফলে প্রথমার্ধ্বে গোল শূন্য থাকতে হয় কোস্টা রিকাকে।

৪৫ মিনিট শেষে এক শূন্য গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জার্মান শিবির।


কাতার বিশ্বকাপ   জার্মানি   কোস্টা রিকা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন