ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ভেন্টিলেশনে সালমান রুশদি

প্রকাশ: ০৮:৪৮ এএম, ১৩ অগাস্ট, ২০২২


Thumbnail ভেন্টিলেশনে সালমান রুশদি

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে হামলার স্বীকার বুকারজয়ী লেখক সালমান রুশদিকে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রাখা হয়েছে। তিনি কথা বলতে পারছেন না। 

সালমান রুশদির শারীরিক অবস্থার বিষয়ে এক বিবৃতিতে এসব জানিয়েছেন তার এক কর্মকর্তার। 

অ্যান্ড্রু ওয়াইলি নামে রুশদির ওই কর্মকর্তা এক বিবৃতিতে বলেছেন,  দ্য স্যাটানিক ভার্সেস-এর রচয়িতা ঔপন্যাসিক সালমান রুশদি একটি চোখ হারাতে পারেন।

এর আগে, যুক্তরাষ্ট্রে ছুরিকাহত হন সালমান রুশদি। শুক্রবার (১২ আগস্ট) নিউইয়র্কের শিটোকোয়া ইনস্টিটিউটে এক অনুষ্ঠানমঞ্চে কথা বলছিলেন তিনি। এ সময় তার ঘাড়ে এক হামলাকারী ছুরিকাঘাত করেন। পরে হেলিকপ্টারে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। এই ঘটনার পর স্থানীয় পুলিশ হাদি মাতার (২৪) নামে সন্দেহভাজন এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। 

পুলিশ বলছে, হামলাকারী মঞ্চে উঠে রুশদি ও তার সাক্ষাৎকার গ্রহণকারীর ওপর হামলা চালান। রুশদির ঘাড়ে ছুরি দিয়ে বেশ কয়েকটি আঘাত করা হয়েছে। পরে হামলাকারীকে ধরে নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ।



অ্যান্ড্রু ওয়াইলি বলেন, ‘সালমান সম্ভবত একটি চোখ হারাতে পারেন। তাঁর বাহুর স্নায়ু বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এবং তাঁর পাকস্থলী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’

‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’ বই লেখার জন্য এ ঔপন্যাসিকের নামে ১৯৮৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছিলেন ইরানের তৎকালীন সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লা খোমেনি। এ বইয়ের জন্য ৯ বছর তাকে আত্মগোপনে থাকতে হয়েছিল।   

একই বইয়ের কারণে নব্বইয়ের দশকে ইতালির মিলানে রুশদির ওপর হামলা চালানো হয়েছিল। শুধু তাই নয়, ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’-এর জাপানি অনুবাদক হিতোসি ইগারাসিকে ছুরি মেরে খুন করা হয় টোকিয়োর একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এ ঔপন্যাসিক ১৯৮১ সালে মিডনাইট'স চিলড্রেন লিখে খ্যাতি অর্জন করেন। যুক্তরাজ্যেই এর এক মিলিয়ন কপি বিক্রি হয়।


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

চীনের নেতৃত্বে বৈঠকে বাংলাদেশসহ ১৯ দেশ, নেই ভারত

প্রকাশ: ০৭:১৬ পিএম, ২৭ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ভারত মহাসাগর ঘিরে বাণিজ্য এবং এই অঞ্চলের বিপর্যয় মোকাবিলা নিয়ে সম্প্রতি একটি বৈঠকের আয়োজন করে চীন। ভারত মহাসাগরের আশপাশের ১৯টি দেশকে ওই বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। তবে ওই তালিকায় ছিল না ভারত।

গত ২১ নভেম্বর চীনের ইউনান প্রদেশের কানমিং প্রদেশে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ সেখানে অংশগ্রহণ করে।

ভারত মহাসাগর সংক্রান্ত বৈঠক অথচ আমন্ত্রিতদের তালিকায় নয়াদিল্লি নেই- বিষয়টি আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

রোববার (২৭ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় বার্তাসংস্থা পিটিআই। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীন এই সপ্তাহে ভারত মহাসাগর অঞ্চলের ১৯টি দেশের সাথে একটি বৈঠক করেছে। যেখানে লক্ষণীয়ভাবে অনুপস্থিত ছিল ভারত।

পিটিআই বলছে, চায়না ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন এজেন্সি (সিআইডিসিএ) নামে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে যুক্ত একটি সংস্থা গত ২১ নভেম্বর চায়না-ইন্ডিয়ান ওশ্যান রিজিওন ফোরাম অন ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন বিষয়ে একটি বৈঠকের আয়োজন করে।

এতে ভারত ছাড়া ১৯টি দেশ অংশ নেয় বলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে সিআইডিসিএ। এতে আরও বলা হয়, ইউনান প্রদেশের কুনমিংয়ে ‘শেয়ারড ডেভেলপমেন্ট: থিওরি অ্যান্ড প্র্যাকটিস ফ্রম দ্য পারস্পেক্টিভ অব দ্য ব্লু ইকোনমি’ থিমের অধীনে মিশ্র পদ্ধতিতে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

আমন্ত্রিত দেশগুলোর তালিকায় ছিল- ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ, মালদ্বীপ, নেপাল, আফগানিস্তান, ইরান, ওমান, দক্ষিণ আফ্রিকা, কেনিয়া, মোজাম্বিক, তানজানিয়া, সিসিলিস, মাদাগাস্কার, মরিসাস, জিবুতি, অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া আরও তিনটি আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধিও এই বৈঠকে অংশ নেন।

বিষয়টি সম্পর্কে জানেন এমন সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে ভারতকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। তবে এই প্রথমবার নয়। করোনা মহামারির মধ্যেও ভারতকে বাদ দিয়ে এশিয়ার অন্য দেশগুলোকে নিয়ে কোভিড টিকার বিষয়ে একটি বৈঠক সম্পন্ন করেছিল বেইজিং।

পিটিআই বলছে, গত বছর ভারতের অংশগ্রহণ ছাড়াই কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন সহযোগিতার বিষয়ে দক্ষিণ এশিয়ার কয়েকটি দেশের সাথে একটি বৈঠক করেছিল চীন।

এদিকে চায়না ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন এজেন্সির (সিআইডিসিএ) নেতৃত্বে রয়েছেন লুও ঝাওহুই। তিনি চীনের সাবেক উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এমনকি ভারতেও তিনি চীনা রাষ্ট্রদূত হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন।

সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট অনুসারে, সিআইডিসিএ-এর লুও ঝাওহুই সিপিসি’র (চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি) লিডারশিপ গ্রুপের সচিব।

সিআইডিসিএ-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বলছে, বিদেশি সাহায্যের জন্য কৌশলগত নির্দেশিকা, পরিকল্পনা এবং নীতি প্রণয়ন করা, প্রধান প্রধান বৈদেশিক সাহায্য সংক্রান্ত বিষয়ে সমন্বয় করা এবং পরামর্শ দেওয়া, বিদশি সাহায্য সম্পর্কিত বিষয়ে দেশের সংস্কারকে এগিয়ে নেওয়া এবং প্রধান প্রধান কর্মসূচি চিহ্নিত করা, তত্ত্বাবধান ও মূল্যায়ন করা ও তাদের বাস্তবায়ন করাই সংস্থার লক্ষ্য।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কা সফরের সময় চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই ‘ভারত মহাসাগরের দ্বীপ দেশগুলোর উন্নয়নে একটি ফোরাম’ প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব করেছিলেন। সিআইডিসিএ বৈঠকটি ওয়াংয়ের সেই প্রস্তাবিত ফোরাম কি না জানতে চাওয়া হলে, চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মিডিয়াকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, গত ২১ নভেম্বরের বৈঠকটি তাদের কোনো অংশ ছিল না।

সিআইডিসিএ-এর দেওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২১ নভেম্বরের বৈঠকে ভারত মহাসাগর অঞ্চলে চীন এবং দেশগুলোর মধ্যে একটি সামুদ্রিক দুর্যোগ প্রতিরোধ এবং প্রশমনে সহযোগিতা ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব করেছে বেইজিং। এছাড়া চীন এই অঞ্চলের দেশগুলোকে প্রয়োজনীয় আর্থিক, উপাদান এবং প্রযুক্তিগত সহায়তা দিতে প্রস্তুত বলেও এতে বলা হয়েছে।

এদিকে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কাসহ বেশ কয়েকটি দেশে বন্দর এবং অবকাঠামোগত খাতে যথেষ্ট বিনিয়োগের মাধ্যমে চীন কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ ভারত মহাসাগর অঞ্চলে প্রভাব বাড়ানোর চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছে পিটিআই।

এছাড়া চীন দেশের বাইরে প্রথম বারের মতো জিবুতিতে একটি পূর্ণাঙ্গ নৌ ঘাঁটি স্থাপন করেছে। একইসঙ্গে ভারতের পশ্চিম উপকূলের বিপরীতে আরব সাগরে পাকিস্তানের গোয়াদরে বন্দর নির্মাণের পাশাপাশি ৯৯ বছরের লিজে শ্রীলঙ্কার হাম্বানটোটা বন্দর অধিগ্রহণ করেছে বেইজিং।

এর পাশাপাশি মালদ্বীপে অবকাঠামো বিনিয়োগও করছে চীন।


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের আগে হঠাৎ বেলারুশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মৃত্যু

প্রকাশ: ১০:১৬ এএম, ২৭ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

বেলারুশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভ্লাদিমির মেকি আকস্মিকভাবে মারা গেছেন। জানা গেছে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গে দেখা করা দুইদিন আগে শনিবার (২৬ নভেম্বর) তার মৃত্যু হয়।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) বেলারুশের রাষ্ট্রীয় বার্তাসংস্থা বেল্টা  এই তথ্য সামনে আনে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভ্লাদিমির মেকি ২০১২ সাল থেকে বেলারুশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন। শনিবার বিস্তারিত আর কোনও তথ্য না জানিয়ে বার্তাসংস্থা বেল্টা জানায়, ‘পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভ্লাদিমির মেকি হঠাৎ মারা গেছেন।’

রয়টার্স বলছে, ৬৪ বছর বয়সী ভ্লাদিমির মেকি চলতি সপ্তাহের শুরুতে আর্মেনিয়ার রাজধানী ইয়েরেভানে যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংস্থার (সিএসটিও)-এর একটি সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন। এটি সোভিয়েত যুগ পরবর্তী বেশ কয়েকটি রাষ্ট্রের একটি সামরিক জোট এবং সোমবার রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গে তার দেখা করার কথা ছিল।

২০২০ সালে বেলারুশে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন এবং সরকার বিরোধী গণবিক্ষোভের আগে মেকি পশ্চিমা দেশগুলোর সাথে বেলারুশের সম্পর্ক উন্নত করার প্রচেষ্টার অন্যতম ব্যক্তিত্ব ছিলেন এবং রাশিয়ার সমালোচনা করেছিলেন। তবে বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর তিনি হঠাৎ করে তার অবস্থান পরিবর্তন করেন। সেসময় বিক্ষোভকারীদের তিনি পশ্চিমের এজেন্টদের মাধ্যমে অনুপ্রাণিত বলে আখ্যা দেন।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন শুরু হওয়ার পর মস্কো এবং মিনস্কের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের সমর্থক মেকি বলেন, পশ্চিমারা যুদ্ধে উস্কানি দিয়েছে এবং ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষের উচিত রাশিয়ার শান্তির শর্তে সম্মত হওয়া।

অবশ্য যুদ্ধ শুরুর কয়েকদিন আগে মেকি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, বেলারুশের ভূখণ্ড থেকে ইউক্রেনের ওপর কোনও আক্রমণ হবে না। কয়েকদিন পরে, রাশিয়ান সৈন্যরা প্রমাণ করে যে তিনি ভুল ছিলেন।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা তার টেলিগ্রাম চ্যানেলে জানিয়েছেন, ‘বেলারুশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রধান ভ্লাদিমির মেকির মৃত্যুর খবরে আমরা হতবাক। আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে শিগগিরই শোক প্রকাশ করব।’

এছাড়া ২০২০ সালের বিক্ষোভ সত্ত্বেও ক্ষমতা ধরে রাখা বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কোও তার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভ্লাদিমির মেকির মৃত্যুর খবরে শোক প্রকাশ করেছেন।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী   বেলারুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী   সের্গেই ল্যাভরভ   ভ্লাদিমির মেকি  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইতালিতে ভূমিধসে নারী নিহত, নিখোঁজ ১৩

প্রকাশ: ০৯:০৫ এএম, ২৭ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

পশ্চিম ইউরোপের দেশ ইতালিতে ভারী বর্ষণের পর ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (২৬ নভেম্বর) ইসচিয়া দ্বীপ সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় এই ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। এতে একজন নারী নিহত এবং ১৩ জন নিখোঁজ রয়েছেন।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ছয় ঘণ্টার ব্যবধানে ১৫৫ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের পর এই ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। বহু গাছপালা, ঘরবাড়ি ও গাড়ি ভেসে গেছে। মাটি নিচে চাপা পড়ে নিখোঁজ হওয়া ব্যক্তিদের প্রাণহানির আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

স্থানীয় বাসিন্দা লিসা মোকিয়ারো জানান, ভোর ৩টার দিকে তারা বজ্রপাতের বিকট আওয়াজ শুনতে পান। এরপর প্রথম ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। ঘণ্টা দুয়েক পর ভোর ৫ টার দিকে দ্বিতীয় দফায় ভূমিধসের ঘটনা ঘটে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পরিস্থিতিকে ‘অত্যন্ত জটিল’ বলে উল্লেখ করেছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও পিয়ান্তেডোসি।

ইতালি   ভূমিধস  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

দলীয়প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করলেন তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট

প্রকাশ: ০৮:৫২ এএম, ২৭ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

তাইওয়ানের ক্ষমতাসীন ডেমোক্র্যাটিক প্রগ্রেসিভ পার্টির (ডিপিপি) দলীয়প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েন। স্থানীয় নির্বাচনে চরম পরাজয়ের পর পার্টি প্রধানের পদ ছেড়েছেন তিনি।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) পদত্যাগের ঘোষণা দেন এই নারী প্রেসিডেন্ট। খবর আল জাজিরা।

তাইওয়ান নিয়ে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সাম্প্রতিক উত্তেজনার কারণে দ্বীপরাষ্ট্রটির দিকে বিশ্বের নজর। তাইওয়ানকে নিজের মূল ভূখন্ড হিসেবে দাবি করে চীন সরকার। অন্যদিকে স্বায়ত্ত্বশাসিত অঞ্চলটির বেশির ভাগ জনগণ পরাধীনতা স্বীকার করে না। দেশটিতে দুটি প্রধান রাজনৈতিক দল।

বর্তমান ক্ষমতাসীন ডিপিপি স্বাধীনতাপন্থী এবং বিরোধী দল কুমিংটাং পার্টি (কেএমপি) চীনপন্থী। শনিবার তাইওয়ানের স্থানীয় নির্বাচনে ক্ষমতাসীন ডিপিপি বিরোধী কেএমপির কাছে হেরে যায়। তাইওয়ানিজরা ৯টি শহর ও ১৩টি কাউন্টির মেয়র ও সিটি কাউন্সিল সদস্য নির্বাচনে ভোট দেন। এ নির্বাচনে অধিকাংশ মেয়র পদে বিরোধী দলের প্রার্থীদের বেছে নেন ভোটাররা। এমনকি রাজধানী তাইপেতে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বিরোধী দলের প্রার্থী চিয়াং ওয়ান-আন। বিজয়ী ভাষণে চীনপন্থী এই নেতা বলেন, বিশ্বকে তাইপের মাহাত্ম্য দেখাব আমি। এরপরই নির্বাচনে পরাজয়ের সব দায় নিজ কাঁধে তুলে নিয়ে পদত্যাগের ঘোষণা দেন সাই ইং-ওয়েন।

শনিবার এক সংক্ষিপ্ত ভাষণে সাই তার সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, নির্বাচনের ফল আশানুরূপ নয়। আমি সব দায় কাঁধে তুলে নিচ্ছি। আমি ডিপিপি প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করছি। দলীয় প্রধানের পদ ছাড়লেও প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব চালিয়ে যাবেন সাই ইং-ওয়েন।

তাইওয়ান প্রেসিডেন্ট   সাই ইং-ওয়েন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

প্রতারণার শিকার সেরাম ইনস্টিটিউট, খুইয়েছে কোটি রুপি

প্রকাশ: ০৮:২৩ এএম, ২৭ নভেম্বর, ২০২২


Thumbnail

হোয়াটসঅ্যাপে প্রতারণার শিকার হয়ে ১ কোটি ১০ হাজার রুপি খুইয়েছে ভারতীয় টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট। গত সেপ্টেম্বরে প্রতিষ্ঠানটির অন্যতম পরিচালক সতীশ দেশপান্ডে একটি বার্তা পান। ওই বার্তায় সতীশকে সাতটি ব্যাংক হিসাবে অর্থ পাঠানোর নির্দেশ দেন ওই ব্যক্তি। বার্তা পাঠানো ওই ব্যক্তির হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টে সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আদর পুনেওয়ালার ছবি দেখে সতীশ মনে করেছিলেন, তিনিই তাদের সিইও। এরপর ওই ব্যক্তির নির্দেশ অনুযায়ী সতীশ সাত ব্যাংক হিসাবে ১ কোটি ১০ হাজার রুপি পাঠান। কিন্তু পরে তিনি জানতে পারেন, প্রতারণার শিকার হয়েছেন। তার প্রতিষ্ঠানের অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতারণার মাধ্যমে কোটি রুপি আত্মসাতের ঘটনায় সেরাম ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে পুলিশে অভিযোগ করা হয়। পুনের পুলিশ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে। এর মধ্যে যে সাত ব্যাংক হিসাবে অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হয়, সেগুলো জব্দ করা হয়েছে। ব্যাংক হিসাবের সূত্র ধরে শনিবার প্রতারক চক্রের সাতজনকে  গ্রেফতারের করেছে পুলিশ।

পুনের উপপুলিশ কমিশনার (ডিসিপি) সমারতানা পাতিল বলেছেন,  সেরামের এক কোটির বেশি রুপি ব্যাংক হিসাবে সরিয়ে নেওয়া হয়। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সাতজন  গ্রেফতারের হয়েছেন। তবে প্রধান অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আমরা এখনো গ্রেফতার করতে পারিনি। সেরাম থেকে ওই চক্র যেসব ব্যাংক হিসাবে অর্থ সরিয়ে নেয়, সেসব ব্যাংক হিসাব পুলিশ জব্দ করা হয়েছে। এ ছাড়া ওই ৭ ব্যাংক হিসাব থেকে লেনদেন হয়েছে, এমন আরও ৪০টি ব্যাংক হিসাবও জব্দ করা হয়েছে। এসব ব্যাংক হিসাবে থাকা আরও ১৩ লাখ রুপি জব্দ করেছে পুলিশ।

সেরাম ইনস্টিটিউট  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন